শনিবার, ২৮ মার্চ ২০২০, ০৬:১৯ অপরাহ্ন

Generic selectors
Exact matches only
Search in title
Search in content
Search in posts
Search in pages
Filter by Categories
24 hour essay writing service
Uncategorized
অপরাধ
অর্থনীতি
আদালত
আন্তর্জাতিক
আবহাওয়া
ইসলাম
কলাম
ক্যাম্পাস
ক্রিকেট
খেলাধুলা
চাকুরির খবর
ছবি
জাতীয়
জীবন ব্যবস্থা
তথ্যপ্রযুক্তি
ধর্ম
নির্বাচিত খবর
পরামর্শ
পুঁজিবাজার
প্রবাস
ফিচার
ফুটবল
ফেসবুক কর্নার
বিনোদন
বিবিধ
ভিডিও
ভোটের হাওয়া
মতামত
রাজধানী
রাজনীতি
রিপোর্টার পরিচিতি
শিক্ষা
শিরোনাম
শিল্প ও সাহিত্য
শীর্ষ খবর
সকল বিভাগ
সবখবর
সম্পাদকীয়
সর্বশেষ
সংস্কৃতি
সাক্ষাৎকার
সারাদেশ
সিটি কর্পোরেশন
স্বাস্থ্য কথা
শিরোনাম

আবার কিন্তু যাওয়া লাগবে ভোট চাইতে মুখটা রাইখেন!

এম আজিজ তালুকদার:রিয়াদ প্রতিনিধি

আবার কিন্তু যাওয়া লাগবে ভোট চাইতে মুখটা রাইখেন!

শেয়ার করুন

জনপ্রতিনিধিদের অনুরুধ খেটে খাওয়া মানুষের পাশে দাঁড়ান একজন শেখ হাসিনা সাধারন মানুষের জন যা করে যাচ্ছেন তার ৫% যদি এমপি মন্ত্রীরা করতেন তাহলে দেশে খাদ্য সংকট বা কোন বস্তিবাসী রিক্সাওয়ালা গরীব দুখী মানুষের কষ্ট থাকতোনা। নির্বাচন আসলে একেকজন প্রার্থী প্রতিযোগিতামূলক টাকা খরচ করে থাকেন কিন্তু দেশের কোন দূর্যোগপূর্ণ মুহুর্তে তাদের আর খুঁজে পাওয়া যায়না। যেমন বিশ্ব যখন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয় এই মারাত্মক ছোয়াছা রোগটি বাংলাদেশেও বিভিন্ন স্থানে মানুষ আক্রান্ত হচ্ছে ইতিমধ্যে ৫জন মৃত্যুবরণ করেছেন শত শত লোক কোয়ারেন্টিনে এবং আইসিলশনে আছেন এই মহামারী থেকে বাঁচতে বাংলাদেশ সরকার বিভিন্ন ভাবে চেষ্টা করে যাচ্ছেন যাতে দেশের মানুষকে এই রোগ থেকে বাঁচাতে পারে সেক্ষেত্রে অনেকে দেখলাম শুধু মাক্স বিতরনেই সীমাবদ্ধ তাদের জানা উচিত যে বাংলাদেশের মানুষ মাক্স কিনতে সমস্যা হবেনা বাংলাদেশের এখনো গ্রামে গন্জে খেটে খাওয়া মানুষ অনেক যারা দিনে এনে দিনে খায় সরকার করোনার প্রাদুর্ভাবে সাধারন মানুষের নিরাপত্তার জন্য সব কিছু বন্ধ করে দিয়েছেন রাস্তায় দিনমজুর খেটে খাওয়া মানুষ গুলো নামতেই পারছেনা তারা করোনার ছেয়েও তাদের খিদার জালা বেশি এমতাবস্তায় সরকারের আইন সৃংঙ্খলা বাহিনী সমাজের বিসৃংঙ্খলা ঠেকাতে ব্যস্ত কিন্তু দেশের বড় বড় মৌলানারা ১থেকে ১০লাখ টাকা ফি নিয়ে ওয়াজের নামে সাধারন ধর্মপ্রান মুসলমানদের টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন এবং জাতীয় সংসদের ৩৫০জন জনপ্রতিনিধির মধ্যে এক মাশরাফি ফেণীর নিজাম হাজারী ও সতন্ত্র নিক্সন চৌধুরী ছাড়া আর কাউকে খুঁজে পাচ্ছেনা জনগন। তাদের মনে রাখা উচিত এই খেটে খাওয়া মানুষদের কাছে ভোটের জন্য যেতে হবে যে দরজায় ভোট চাইতে গিয়েছিলেন সেই দরজায় একবার কড়া নেড়ে দেখুন কেউ অভুক্ত কিনা। খিদার জ্বালা বড় জ্বালা। কয়েক হাজার অনাহারী মানুষকে খাওয়াতে আপনার সম্পদের ভগ্নাংশও বিক্রি করতে হবে না৷ তাদের জন্যই তো আপনার ন্যাম ভবনে ফ্লাট, শুল্ক মুক্ত গাড়ি, মাস শেষে বড় অংকের টাকা। মনে রাখবেন আবার কিন্তু যাওয়া লাগবে ভোট চাইতে মুখটা রাইখেন।
শেয়ার করুন:

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

shares
%d bloggers like this: