শুক্রবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৪:১৮ অপরাহ্ন

Generic selectors
Exact matches only
Search in title
Search in content
Search in posts
Search in pages
Filter by Categories
24 hour essay writing service
Uncategorized
অপরাধ
অর্থনীতি
আদালত
আন্তর্জাতিক
আবহাওয়া
ইসলাম
কলাম
ক্যাম্পাস
ক্রিকেট
খেলাধুলা
চাকুরির খবর
ছবি
জাতীয়
জীবন ব্যবস্থা
তথ্যপ্রযুক্তি
ধর্ম
নির্বাচিত খবর
পরামর্শ
পুঁজিবাজার
প্রবাস
ফিচার
ফুটবল
ফেসবুক কর্নার
বিনোদন
বিবিধ
ভিডিও
ভোটের হাওয়া
মতামত
রাজধানী
রাজনীতি
রিপোর্টার পরিচিতি
শিক্ষা
শিরোনাম
শিল্প ও সাহিত্য
শীর্ষ খবর
সকল বিভাগ
সবখবর
সম্পাদকীয়
সর্বশেষ
সংস্কৃতি
সাক্ষাৎকার
সারাদেশ
সিটি কর্পোরেশন
স্বাস্থ্য কথা
শিরোনাম

রামপাল প্রকল্প বাতিল করুন: অ্যাডভোকেট সুলতানা কামাল

রামপাল প্রকল্প বাতিল করুন: অ্যাডভোকেট সুলতানা কামাল

সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা, মানবাধিকার কর্মী অ্যাডভোকেট সুলতানা কামাল রামপাল প্রকল্প বাতিল ও সুন্দরবন রক্ষায় জরুরি পদক্ষেপ গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, বন বিধ্বংসী উন্নয়ন প্রকল্প ও শিল্পায়ন সুন্দরবনের জন্য মারাত্মক নেতিবাচক হয়ে দাঁড়িয়েছে। এখন নানা কারণে আমাদের জাতীয় সম্পদ সুন্দরবন ধ্বংসের সর্বোচ্চ হুমকির সম্মুখীন।

রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি মিলনায়তনে আজ শনিবার  এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। ‘সুন্দরবন ও রামপাল তাপবিদ্যুৎ প্রকল্পের সর্বশেষ অবস্থা ও করণীয়’ শীর্ষক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে সুন্দরবন রক্ষা জাতীয় কমিটি। এতে আরও বক্তব্য দেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক বদরুল ইমাম, বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ ড. নজরুল ইসলাম, সুন্দরবন রক্ষা জাতীয় কমিটির সদস্য শরীফ জামিল, অধ্যাপক আবদুল আজিজ, কমিটির নেতা জাকির হোসেন ও শামসুল হুদা এবং বাপার সহসভাপতি স্থপতি মোবাশ্বের হোসেন প্রমুখ।

সুন্দরবন জাতীয় রক্ষা কমিটির আহ্বায়ক সুলতানা কামাল বলেন, এরই মধ্যে রামপাল প্রকল্প নিয়ে মোট ১৪টি প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে। এসব প্রতিবেদনে পরিস্কার করে বলা হয়েছে, বাংলাদেশে সরকারের দেওয়া এ-সংক্রান্ত তথ্য ও যুক্তি ৩০ বছরের পুরনো। সরকারি পরামর্শকরা পুরনো ও ভুল তথ্যভিত্তিক প্রচারে ব্যাপৃত রয়েছেন। অতি সংবেদনশীল ও অতি গূরুত্বপূর্ণ এ বিষয়টিতে তাদের অনেক তথ্য হাস্যকর। তাদের ওপর সরকারি নির্ভরশীলতা অতি উদ্বেগজনক।

সুলতানা কামাল আরও বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণকে ইউনেস্কো ‘মেমোরি অব দি ওয়ার্ল্ড’ হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে। এটি অবশ্যই আমাদের জন্য গর্বের এবং বড় প্রাপ্তি। কিন্তু সুন্দরবন বিষয়ে ইউনেস্কোর যে আপত্তি, সেটিকেও গুরুত্ব দিতে হবে। দুটিই তো ইউনেস্কোর স্বীকৃত তথ্য। তাই এ ক্ষেত্রে দ্বৈত নীতি কাম্য নয়।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

shares