বৃহস্পতিবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৮:৩১ পূর্বাহ্ন

Generic selectors
Exact matches only
Search in title
Search in content
Search in posts
Search in pages
Filter by Categories
24 hour essay writing service
Uncategorized
অর্থনীতি
আদালত
আন্তর্জাতিক
আবহাওয়া
ইসলাম
কলাম
ক্যাম্পাস
ক্রিকেট
খেলাধুলা
চাকুরির খবর
ছবি
জাতীয়
জীবন ব্যবস্থা
তথ্যপ্রযুক্তি
ধর্ম
নির্বাচিত খবর
পরামর্শ
পুঁজিবাজার
প্রবাস
ফিচার
ফুটবল
ফেসবুক কর্নার
বিনোদন
বিবিধ
ভিডিও
ভোটের হাওয়া
মতামত
রাজধানী
রাজনীতি
রিপোর্টার পরিচিতি
শিক্ষা
শিরোনাম
শিল্প ও সাহিত্য
শীর্ষ খবর
সকল বিভাগ
সবখবর
সম্পাদকীয়
সর্বশেষ
সংস্কৃতি
সাক্ষাৎকার
সারাদেশ
সিটি কর্পোরেশন
স্বাস্থ্য কথা
শিরোনাম

নির্বাচনে কালো টাকা ব্যবহার হলে ব্যবস্থা নেবে দুদক

গণমাধ্যমের সঙ্গে মতবিনিময়

নির্বাচনে কালো টাকা ব্যবহার হলে ব্যবস্থা নেবে দুদক
প্রিন্ট করুন
নির্বাচনী প্রচারণায় যারা কালো টাকা ব্যবহার করবেন, তাদের তালিকা করা হবে। এ লক্ষ্যে কমিশনের গোয়েন্দা ইউনিটকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। যাদের বিরুদ্ধে কালো টাকা ব্যবহারের প্রমাণ পাওয়া যাবে, তাদের আইনের আওতায় আনা হবে। হলফনামার তথ্যও যাচাই-বাছাই করা হবে।

‘আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী দিবস পালন ও উত্তম চর্চার বিকাশে গণমাধ্যমের ভূমিকা’ শীর্ষক এক মতবিনিময় সভায় দুর্নীতি দমন কমিশনের চেয়ারম্যান (দুদক) ইকবাল মাহমুদ এ কথা বলেন। ৯ ডিসেম্বর জাতিসংঘ ঘোষিত আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী দিবস পালন করা হবে।

দিবসটি সামনে রেখে প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সম্পাদক ও উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে বৃহস্পতিবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় দুদকের প্রধান কার্যালয় মিলনায়তনে মতবিনিময় সভা হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন কমিশনের চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ। সভায় দুর্নীতি দমন ও প্রতিরোধের নানা তথ্য তুলে ধরেন দুদক সচিব ড. মো. শামসুল আরেফিন।

সভার সভাপতি দুদক চেয়ারম্যান বলেন, নির্বাচনী প্রচারণায় কতগুলো গরু-খাসি জবাই করলেন, কতগুলো লাল পোস্টার টানানো হলো— এ ধরনের নানা তথ্য সংগ্রহ করা হবে। মানুষ প্রত্যাশা করে রাজনীতি, প্রশাসন যে ক্ষেত্রেরই হোক না কেন, নেতৃত্ব হতে হবে পুতপবিত্র। নির্বাচনে যারা প্রার্থী হবেন, তারা তাদের হলফনামায় সম্পদের সঠিক হিসাব দেবেন— এটাই কমিশনের প্রত্যাশা। হলফনামার সম্পদের হিসাব খতিয়ে দেখতে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড থেকে সংশ্লিষ্ট প্রার্থীর আয়কর নথি সংগ্রহ করা হবে। একই সঙ্গে রেজিস্ট্রার অব জয়েন্ট স্টক এবং ব্যাংক থেকেও তথ্য সংগ্রহ করা হবে।

ইকবাল মাহমুদ বলেন, দুর্নীতির কোনো সংজ্ঞা এখন পর্যন্ত চূড়ান্তভাবে তৈরি হয়নি। এ ক্ষেত্রে তিনি মনে করেন, বিবেকের বিরুদ্ধে যা করা হয়, সেটাই দুর্নীতি।

সভায় বিভিন্ন গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব দুর্নীতি দমন ও প্রতিরোধে নানা মতামত ও সুপারিশ তুলে ধরেন। তারা বলেন, দুর্নীতি দমনে দুদককে আরও বলিষ্ঠ ভূমিকা পালন করতে হবে। দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে হবে। দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রচারণাসহ নানা ক্ষেত্রে কমিশনকে সহায়তার আশ্বাস দেন তারা।

ডেইলি স্টার সম্পাদক মাহফুজ আনাম জানান, আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী দিবস উপলক্ষে দুদকের উদ্যোগের প্রতি সমর্থন জানাতে ও চেয়ারম্যানের প্রতি সম্মান জানাতে তিনি সভায় এসেছেন।

একুশে টেলিভিশনের সিইও ও প্রধান সম্পাদক মনজুরুল আহসান বুলবুল সম্ভাব্য প্রার্থীদের নির্বাচনী হলফনামার তথ্য উল্লেখ করে বলেন, একজন স্ত্রীর টাকায় কেনা গাড়িতে চড়েন, আরেকজনের ব্যাংকে আট কোটি টাকা দেনা থাকার পরও শ্যালিকার টাকায় নির্বাচন করবেন। শ্যালিকা টাকা কোথায় পেলেন— সেই তথ্য খতিয়ে দেখা দরকার। একজন প্রার্থীর প্রচারণার জন্য সর্বোচ্চ ২৫ লাখ টাকা খরচের কথা বলেছে ইসি। অথচ এমনও প্রার্থী আছেন, যিনি একদিনেই ২৫ লাখ টাকা খরচ করেন। যারা সংসদে যাবেন, তাদের সৎ হতে হবে।

দৈনিক সমকালের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মুস্তাফিজ শফি বলেন, দুর্নীতি দমনের ক্ষেত্রে মানুষ কথার চেয়ে কাজের অগ্রগতি দেখতে চায়।

চেয়ারম্যানের উদ্দেশে তিনি বলেন, আপনারা রাজনীতির ঊর্ধ্বে আছেন, সেটা কাজ দিয়ে প্রমাণ করতে হবে। বেশি বেশি উদাহরণ সৃষ্টি করুন- গণমাধ্যম কমিশনের পাশে থাকবে।

একাত্তর টেলিভিশনের সিইও মোজাম্মেল বাবু বলেন, দুর্নীতি মামলার বিচারকাজ দ্রুত শেষ করতে সামারি ট্রায়াল চালু করা যেতে পারে। তিনি দুর্নীতি দমন কাজ সহজ করতে জমি, টাকা ও মানুষের ডাটাবেজ তৈরির পরামর্শ দেন।

দৈনিক প্রথম আলোর সহযোগী সম্পাদক আব্দুল কাইয়ুম মুকুল বলেন, রাঘববোয়ালদের ধরার চেষ্টা করুন। ব্যর্থ হলেও মানুষ বলবে, দুদক কাজ করেছে। তবে একজন ব্যক্তিকে অভিযুক্ত হিসেবে আমলে নেওয়ার আগে ও ব্যক্তিটিকে ডাকার আগে তাকে দোষী বলার মতো যথেষ্ট তথ্য-প্রমাণ সংগ্রহ করতে হবে।

এটিএন বাংলার জ. ই. মামুন বলেন, নির্বাচন এলেই মনোনয়ন-বাণিজ্য হয়। এই বাণিজ্যের সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার পরামর্শ দেন তিনি। ডিবিসি টেলিভিশনের সিইও মঞ্জুরুল হক দুর্নীতি দমন ও প্রতিরোধে পদ্ধতিগত পরিবর্তনের পরামর্শ দিয়েছেন।

মানবজমিন পত্রিকার যুগ্ম সম্পাদক শামীমুল হক বলেন, দুর্নীতি মামলার বিচারিক কার্যক্রম দুদকের আওতায় আনা হলে বিচারে দীর্ঘসূত্রতা কমে যাবে।

সভায় আরও বক্তব্য দেন কালের কণ্ঠের সম্পাদক ইমদাদুল হক মিলন, এসএ টিভির খ ম হারুন, ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশনের আশিস সৈকত, চ্যানেল টোয়েন্টিফোরের হেড অব নিউজ রাহুল রাহা, আরটিভির সৈয়দ আশিক রহমান, দেশ টিভির ডিএমডি আরিফ হাসান, মাই টিভির খান মো. সালেহ ও হাসান ইমাম।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সংশ্লিষ্ট সংবাদ