বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ ২০১৯, ১১:৫০ অপরাহ্ন

Generic selectors
Exact matches only
Search in title
Search in content
Search in posts
Search in pages
Filter by Categories
24 hour essay writing service
Uncategorized
অর্থনীতি
আদালত
আন্তর্জাতিক
আবহাওয়া
ইসলাম
কলাম
ক্যাম্পাস
ক্রিকেট
খেলাধুলা
চাকুরির খবর
ছবি
জাতীয়
জীবন ব্যবস্থা
তথ্যপ্রযুক্তি
ধর্ম
নির্বাচিত খবর
পরামর্শ
পুঁজিবাজার
প্রবাস
ফিচার
ফুটবল
ফেসবুক কর্নার
বিনোদন
বিবিধ
ভিডিও
ভোটের হাওয়া
মতামত
রাজধানী
রাজনীতি
রিপোর্টার পরিচিতি
শিক্ষা
শিরোনাম
শিল্প ও সাহিত্য
শীর্ষ খবর
সকল বিভাগ
সবখবর
সম্পাদকীয়
সর্বশেষ
সংস্কৃতি
সাক্ষাৎকার
সারাদেশ
সিটি কর্পোরেশন
স্বাস্থ্য কথা
শিরোনাম

ভালো বৌ তৈরিতে বিশ্ববিদ্যালয়ে চালু হচ্ছে বিশেষ কোর্স!

ভালো বৌ তৈরিতে বিশ্ববিদ্যালয়ে চালু হচ্ছে বিশেষ কোর্স!
প্রিন্ট করুন

বিয়ের পর শ্বশুর বাড়িতে বৌ নিয়ে নানা ঝামেলা লেগেই থাকে। নতুন পরিবেশে বৌয়ের যেমন মানিয়ে নিতে সমস্যা হয়, তেমনি শ্বশুর বাড়ির লোকজনের মাঝেও বৌ নিয়ে তৈরি হয় নানা বিড়ম্বনা।

অধিকাংশ শ্বশুর বাড়ির লোকজনের অভিযোগ বৌ মানিয়ে নিতে পারছে না শ্বশুর বাড়ির সাথে। এবার সেই সমস্যা লাঘব করতে ভারতের বারকাতুল্লাহ
বিশ্ববিদ্যালয় কোস চালু করেছে।

এদিকে, সংবাদপত্রে পাত্র-পাত্রীর বহু চটকদার বিজ্ঞাপনে দেখতে পাওয়া যায়। যেখানে পরিবারে দাবি থাকে লক্ষ্মী, গুনবতী বৌমা চান। চাওয়ার আর শেষ নেই। বৌকে হতে হবে গৃহকাজে নিপুণা, সব কাজে পারদর্শী। পাত্রের পরিবারের চাহিদার কথা মাথায় রেখেই সম্ভবত ভাল বৌমা তৈরির পাঠ দিতে চলেছে ভারতের একটি বিশ্ববিদ্যালয়।

মধ্যপ্রদেশ রাজ্যের ভোপালের বারকাতুল্লাহ বিশ্ববিদ্যালয়ে আগামী শিক্ষাবর্ষ থেকেই শুরু হচ্ছে তিন মাসের কোর্স। ভালো বৌমা হতে চাইলে ভর্তি হয়ে যেতে হবে তাড়াতাড়ি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ডি সি গুপ্তা জানিয়েছেন, বিয়ের পর নতুন পরিবেশে মেয়েরা যাতে সহজে মানিয়ে নিতে পারে সেই জন্যই এই উদ্যোগ। একটি বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে সমাজের প্রতি আমাদের একটি দায়িত্ব রয়েছে।

ইতোমধ্যে কোর্সটি চালু হয়েছে বলে বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে। আমরা শুধুমাত্র পড়াশুনার গন্ডির মধ্যে আটকে থাকতে পারি না। নববধূরা যাতে নতুন জীবনে মানিয়ে নিতে পারে, সেজন্য তাদের তৈরি করাটাও আমাদের কর্তব্যের মধ্যে পড়ে।

কর্তৃপক্ষ মনে করছেন, নারীর স্বাধীনতা অর্জনের লক্ষ্যে আরও একধাপ এগিয়ে নিয়ে যাবে এই উদ্যোগ। পাইলট প্রজেক্ট হিসেবে সাইকোলজি, স্যোশিওলজি এবং ওমেনস স্টাডিজ বিভাগে শুরু হবে এই বিষয়ের পড়াশুনা। পড়ার বিষয়ও এগুলিই।

ডি সি গুপ্তা আরও বলেছেন, আমাদের লক্ষ্য এই কোর্স শেষ হওয়ার পর মেয়েদের মধ্যে যেন সংসার ও সমাজে তাদের অবস্থান স্পষ্ট হয়। সমাজে একটা বদল আনাই আমাদের মূল লক্ষ্য। প্রথমবার ৩০ জন মেয়েকে নিয়ে শুরু হবে। এই কোর্সে ভর্তির জন্য শিক্ষাগত যোগ্যতা কি হবে তা নিয়ে অবশ্য এখনও কেউ কিছু জানাননি।

এদিকে সাইকোলজি বিভাগের অধ্যাপক কে এন ত্রিপাঠি এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন। তবে অনেক শিক্ষাবিদের কাছে এটি হাস্যকর উদ্যোগ। এর আগে বারানসি বিশ্ববিদ্যালয়ে এই ধরণের একটি উদ্যোগ নেওয়ার কথা শোনা গেলেও পরে তা ভুল বলে জানা যায়। তবে এ ক্ষেত্রে কি উদ্যোগের কি পরিণতি হবে তা এখনও নিশ্চিত নয়।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সংশ্লিষ্ট সংবাদ