বৃহস্পতিবার, ২৭ Jun ২০১৯, ০৫:৫৯ অপরাহ্ন

Generic selectors
Exact matches only
Search in title
Search in content
Search in posts
Search in pages
Filter by Categories
24 hour essay writing service
Uncategorized
অপরাধ
অর্থনীতি
আদালত
আন্তর্জাতিক
আবহাওয়া
ইসলাম
কলাম
ক্যাম্পাস
ক্রিকেট
খেলাধুলা
চাকুরির খবর
ছবি
জাতীয়
জীবন ব্যবস্থা
তথ্যপ্রযুক্তি
ধর্ম
নির্বাচিত খবর
পরামর্শ
পুঁজিবাজার
প্রবাস
ফিচার
ফুটবল
ফেসবুক কর্নার
বিনোদন
বিবিধ
ভিডিও
ভোটের হাওয়া
মতামত
রাজধানী
রাজনীতি
রিপোর্টার পরিচিতি
শিক্ষা
শিরোনাম
শিল্প ও সাহিত্য
শীর্ষ খবর
সকল বিভাগ
সবখবর
সম্পাদকীয়
সর্বশেষ
সংস্কৃতি
সাক্ষাৎকার
সারাদেশ
সিটি কর্পোরেশন
স্বাস্থ্য কথা
শিরোনাম

অতিরিক্ত আইজিপি রৌশন আরা বেগম এর স্মরণে শোক সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

অতিরিক্ত আইজিপি রৌশন আরা বেগম এর স্মরণে শোক সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত
প্রিন্ট করুন
বাংলাদেশ পুলিশ’র অতিরিক্ত মহা-পুলিশ পরিদর্শক রৌশন আরা বেগম পিপিএম, এনডিসি এর স্মরণে এক শোক সভা, ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আজ (২০ মে ২০১৯) সোমবার বিকাল তিনটায় রাজারবাগ পুলিশ অডিটোরিয়ামে বাংলাদেশ পুলিশ সার্ভিস এসোসিয়েশন কর্তৃক আয়োজিত স্মরণ সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী, বিপিএম (বার)। সভায় সভাপতিত্ব করেন মহাপরিচালক, র‌্যাব ফোর্সেস ও বাংলাদেশ পুলিশ সার্ভিস এসোসিয়েশনের সভাপতি ড. বেনজীর আহমেদ বিপিএম (বার)।

শোক সভায় পুলিশ’র ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ রৌশন আরা বেগমের পুলিশ বাহিনীতে দীর্ঘ ৩১ বছরের চাকুরী জীবনের স্মৃতিচারণ করেন। শোক সভার শুরুতেই তাঁর স্মরণে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।

এ সময় আইজিপি মহোদয় স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে বলেন, রৌশন আরা ছিলেন বাংলাদেশ পুলিশের একজন উজ্জ্বল নক্ষত্র। তিনি নিজেকে নারী সদস্য হিসেবে নয়, একজন চৌকস পুলিশ অফিসার হিসেবে নিজেকে পরিচিত করেছেন।

আইজিপি বলেন, রৌশন আরা ছিলেন অত্যান্ত দৃঢ়চেতা, বিনয়ী একজন অফিসার । আমরা সাহসী এক পুলিশ অফিসারকে হারিয়েছি যাঁর জায়গা পূরণ হবার নয়।

স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে ডিএমপি কমিশনার মো আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, আমি আমার বন্ধুকে হারিয়েছি। যে ছিল একজন প্রচন্ড আত্মবিশ্বাসী অফিসার।

সভাপতির বক্তব্যে বেনজীর আহমেদ প্রয়াত রৌশন আরা বেগমের স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে বলেন,রৌশন আরা ছিলেন বাংলাদেশ পুলিশ’র প্রথম নারী পুলিশ সুপার। চাকুরী জীবনে তিনি বাংলাদেশ পুলিশ’র নারী সদস্যদের জন্য রোল মডেল।

উল্লেখ্য, গত ০৫ মে ২০১৯  স্থানীয় সময় সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টার দিকে কঙ্গোর কিনসা এলাকায় এক ভয়াবহ সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত হন অতিরিক্ত আইজিপি রৌশন আরা বেগম । তিনি সেখানে শান্তিরক্ষা মিশনে কর্মরত বাংলাদেশ নারী ফর্মড পুলিশ ইউনিটের মেডেল প্যারেড উপলক্ষে গিয়েছিলেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৫৭ বছর।

তিনি ১৯৮৮ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি পুলিশ ক্যাডারে যোগদান করেন। মৌলিক প্রশিক্ষণ শেষে তিনি ঢাকায় শিক্ষানবিস সহকারী পুলিশ সুপার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এরপর রাজশাহীর সারদা পুলিশ একাডেমি, নারায়ণগঞ্জ ও ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশে (ডিএমপি) সহকারী পুলিশ কমিশনার হিসেবে কর্মরত ছিলেন। ১৯৯৪ সালে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হিসেবে পদোন্নতি পেয়ে কক্সবাজারে দায়িত্ব পালন করেন। এরপর একই পদে টাঙ্গাইল, কুমিল্লা ও চট্টগ্রামে কর্মরত ছিলেন।

১৯৯৮ সালের ৩ ডিসেম্বর প্রথম নারী পুলিশ সুপার হিসেবে পদোন্নতি পেয়ে মুন্সীগঞ্জে দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৮ সালের ৬ নভেম্বর তিনি অতিরিক্ত আইজিপি হিসেবে পদোন্নতি পান।

পুলিশ বাহিনীতে অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ দুইবার আইজিপি ব্যাচ প্রাপ্ত হন এবং বাংলাদেশ সরকারের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ পুলিশ পদক ‘পিপিএম’ লাভ করেন। ১৯৯৮ সালে তিনি মুন্সীগঞ্জের পুলিশ সুপার থাকাকালীন ‘অনন্যা শীর্ষ দশ-১৯৯৮’ পুরস্কার ও ২০১২ সালে ইন্টারন্যাশনাল অ্যাসোসিয়েশন অব উইমেন পুলিশের স্কলারশিপ অ্যাওয়ার্ড-২০১২ লাভ করেন।

সভায় অতিরিক্ত আইজিপি, ডিআইজিসহ বাংলাদেশ পুলিশ’র ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

shares