মঙ্গলবার, ২৩ Jul ২০১৯, ১২:৫৯ অপরাহ্ন

Generic selectors
Exact matches only
Search in title
Search in content
Search in posts
Search in pages
Filter by Categories
24 hour essay writing service
Uncategorized
অপরাধ
অর্থনীতি
আদালত
আন্তর্জাতিক
আবহাওয়া
ইসলাম
কলাম
ক্যাম্পাস
ক্রিকেট
খেলাধুলা
চাকুরির খবর
ছবি
জাতীয়
জীবন ব্যবস্থা
তথ্যপ্রযুক্তি
ধর্ম
নির্বাচিত খবর
পরামর্শ
পুঁজিবাজার
প্রবাস
ফিচার
ফুটবল
ফেসবুক কর্নার
বিনোদন
বিবিধ
ভিডিও
ভোটের হাওয়া
মতামত
রাজধানী
রাজনীতি
রিপোর্টার পরিচিতি
শিক্ষা
শিরোনাম
শিল্প ও সাহিত্য
শীর্ষ খবর
সকল বিভাগ
সবখবর
সম্পাদকীয়
সর্বশেষ
সংস্কৃতি
সাক্ষাৎকার
সারাদেশ
সিটি কর্পোরেশন
স্বাস্থ্য কথা
শিরোনাম

ধর্মীয় অনুশাসন মেনে চলুন, সৃষ্টিকর্তায় বিশ্বাস রাখুন, হার্ট ভাল থাকবে: ডা. দেবী শেঠী

ধর্মীয় অনুশাসন মেনে চলুন, সৃষ্টিকর্তায় বিশ্বাস রাখুন, হার্ট ভাল থাকবে: ডা. দেবী শেঠী

বাংলাদেশ ভারতের ব্যাঙালুরুর নারায়ণা ইনস্টিটিউট অব কার্ডিয়াক সায়েন্সের প্রতিষ্ঠাতা, খ্যাতিমান হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. দেবী প্রসাদ শেঠী বলেন ইউরোপ আমেরিকার তুলনায় ভারত বাংলাদেশের মানুষের হৃদরোগের ঝুঁকি তিনগুণ

এবং ডায়াবেটিসের ঝুঁকি ২০ গুন বেশি, তিনি বলেন বংশানুক্রমিকভাবে এই অঞ্চলের মানুষ হৃদরোগের ঝুঁকির মধ্যে রয়েছেন। Advertisements তবে চট্টগ্রামে গতকাল থেকে চালু হওয়া ইম্পেরিয়াল হাসপাতালে স্থাপিত বিশ্বের সর্বাধুনিক একটি সিটি স্ক্যান মেশিনের কথা উল্লেখ করে ডাক্তার দেবী শেঠী বলেন,

এই মেশিনের সাহায্যে মাত্র তিন সেকেন্ডেই একজন মানুষের আগামী ২০ বছরের মধ্যে হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার আশংকা আছে কিনা তা বলে দেয়া সম্ভব।

তিনি বলেন, ইউরোপ আমেরিকায় হৃদরোগ হচ্ছে অবসরপ্রাপ্ত মানুষদের রোগ, ৬০-৬৫ বছর বয়সের পরে দেখা দেয়। আর এই অঞ্চলে হৃদরোগ হচ্ছে যুবকদের রোগ, ৪০ এর আগে পরেই হৃদরোগে আক্রান্তের ঘটনা ঘটতে শুরু করে।

ইউরোপ আমেরিকায় সন্তানেরা বৃদ্ধ পিতা-মাতাদের হৃদরোগের চিকিৎসা করাতে নিয়ে যায়, আর এই অঞ্চলে বৃদ্ধ পিতা-মাতা সন্তানদের হৃদরোগের চিকিৎসা করাতে হাসপাতালে ছুটেন।

গতকাল শনিবার সকালে নগরীর পাহাড়তলী চক্ষু হাসপাতালের সন্নিকটস্থ ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল উদ্বোধন শেষে তিনি সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে উপরোক্ত মন্তব্য করেন। এ সময় তিনি চট্টগ্রামে কর্মরত প্রিন্ট এবং ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ায় কর্মরত সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন।

ডা. দেবী শেঠী বলেন, খাদ্যাভ্যাস এবং জীবনাচারের মাধ্যমে হৃদরোগের ঝুঁকি কমানো যায়। নিয়মিত হাঁটা এবং ব্যায়াম হৃদরোগের ঝুঁকি কমায়। বাংলাদেশ এবং ভারতের মানুষ ব্যায়াম করতে চান না বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

ডাক্তার দেবী শেঠী ভাজা পোড়া না খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে বলেন, তেলে ভাজা খাবার হৃদরোগ ত্বরান্বিত করে। যে কোন ধরনের জাঙ্ক ফুড হৃদরোগের ঝুঁকি বাড়ায়। ধুমপান হৃদরোগকে আমন্ত্রণ জানায়।

বাংলাদেশ এবং ভারতে অপেক্ষাকৃত তরুণ বয়সের লোকজন হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যাচ্ছেন বলেও তিনি উল্লেখ করেন। পৃথিবীর খ্যাতনামা এই কার্ডিয়াক সার্জন ধর্মীয় অনুশাসন মানুষকে ভালো রাখে মন্তব্য করে বলেন, আপনি যেই ধর্মেরই হোন না কেন, ধার্মিক হোন। সৃষ্টিকর্তায় বিশ্বাস রাখুন।

আপনাকে আধ্যাত্মিকতা অর্জন করতে হবে না, শুধু ধর্মীয় অনুশাসনগুলো মেনে চলুন। প্রতিদিন কাজ শুরু করার আগে গডকে বলুন। কাজ শেষ করে গডকে ধন্যবাদ দিন। ভেরি সিম্পল। আপনি ভালো থাকবেন।

বাংলাদেশ এবং ভারতে রোগ প্রতিরোধের জন্য চেকআপের সংস্কৃতি গড়ে উঠেনি উল্লেখ করে ডাক্তার দেবী শেঠী বলেন, অসুস্থ না হলে এখানে কেউ ডাক্তারের কাছে যেতে চান না। অথচ সুস্থ অবস্থায় সুস্থ থাকার জন্যই ডাক্তারের কাছে বেশি যাওয়া উচিত।

নিয়মিত চেকআপ করানোর মাধ্যমে বহু রোগ প্রতিরোধ করা সম্ভব বলেও তিনি উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, সিটি স্ক্যান নামের একটি মেশিন আছে। এই মেশিন দিয়ে মাত্র তিন সেকেন্ডে আগামী বিশ বছরের মধ্যে কোন লোকের হার্ট অ্যাটাক হবে কিনা তা বলে দেয়া সম্ভব।

এই মেশিনটি ইম্পেরিয়ালেও আছে। আমি দেখলাম এখানে বেশ লেটেস্ট মডেলের সিটি স্ক্যান মেশিন বসানো হয়েছে। সিটি এনজিওগ্রামের মাধ্যমেও হৃদরোগ থেকে আগাম সতর্ক হওয়া যায়।

ডাক্তার দেবী শেঠী বলেন, প্রত্যেক সুস্থ মানুষের প্রতি দুই বছরে অন্তত একবার চেকআপ করানো উচিত। ব্লাড প্রেসার এবং ডায়াবেটিসসহ হৃদযন্ত্রের পরীক্ষাগুলো খুবই জরুরি বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

রাষ্ট্রীয় অর্থ আত্মসাতের কথা স্বীকার করল নেতানিয়াহুর স্ত্রী; ১৫ হাজার ডলার জরিমানা

ইহুদিবাদী ইসরাইলের যুদ্ধবাজ প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর স্ত্রী সারা নেতানিয়াহু রাষ্ট্রীয় অর্থ অপব্যবহার ও প্রতারণার কথা স্বীকার করে নিয়েছেন।

জেরুজালেমের আদালত আজ (রোববার) এ অপরাধে তাকে ১৫ হাজার ডলার জরিমানা করেছে। সারা নেতানিয়াহু ২০১০ সাল থেকে ২০১৩ সালের মধ্যে খাবার কেনা বাবদ এক লাখ ডলার রাষ্ট্রীয় অর্থ অপব্যবহার করেছেন।

তদন্ত কর্মকর্তারা বলেছেন, সারা নেতানিয়াহু জেনেশুনেই আইন অমান্য করেছেন এবং অপরাধ করার সময় তিনি জানতেন এটা অপরাধ। এর আগে সারা নেতানিয়াহু এই অভিযোগ অস্বীকার করেছিলেন,

এমনকি বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুও দাবি করেছিলেন, তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ উদ্ভট ও ভিত্তিহীন। নেতানিয়াহু এতদিন অভিযোগ অস্বীকার করার পর এখন কেন তা স্বীকার করলেন সে ব্যাখ্যা দেন নি সারা নেতানিয়াহু।

আদালতে নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধেও কয়েকটি মামলা চলছে। তার বিরুদ্ধে ঘুষ গ্রহণ, গুরুতর প্রতারণা ও বিশ্বাসভঙ্গের অভিযোগ আনা হয়েছে। সুত্র: পার্সটুডে

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

shares