রবিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৯, ১১:৫৬ পূর্বাহ্ন

Generic selectors
Exact matches only
Search in title
Search in content
Search in posts
Search in pages
Filter by Categories
24 hour essay writing service
Uncategorized
অপরাধ
অর্থনীতি
আদালত
আন্তর্জাতিক
আবহাওয়া
ইসলাম
কলাম
ক্যাম্পাস
ক্রিকেট
খেলাধুলা
চাকুরির খবর
ছবি
জাতীয়
জীবন ব্যবস্থা
তথ্যপ্রযুক্তি
ধর্ম
নির্বাচিত খবর
পরামর্শ
পুঁজিবাজার
প্রবাস
ফিচার
ফুটবল
ফেসবুক কর্নার
বিনোদন
বিবিধ
ভিডিও
ভোটের হাওয়া
মতামত
রাজধানী
রাজনীতি
রিপোর্টার পরিচিতি
শিক্ষা
শিরোনাম
শিল্প ও সাহিত্য
শীর্ষ খবর
সকল বিভাগ
সবখবর
সম্পাদকীয়
সর্বশেষ
সংস্কৃতি
সাক্ষাৎকার
সারাদেশ
সিটি কর্পোরেশন
স্বাস্থ্য কথা
শিরোনাম

শেখ তাপস-ফাহিম-তন্ময়সহ যারা যারা আছেন প্রধানমন্ত্রীর গুড বুকে!

শেখ তাপস-ফাহিম-তন্ময়সহ যারা যারা আছেন প্রধানমন্ত্রীর গুড বুকে!

খুব নীরবে আওয়ামী লীগের পালাবদল হচ্ছে। পুরনো নেতৃত্ব সরে যাচ্ছে, নতুন নেতৃত্ব উদ্ভাসিত হচ্ছে। নতুনদের মধ্য থেকে যারা শেখ হাসিনার নজরে পড়েছেন এবং যাদেরকে শেখ হাসিনা আগামী নেতৃত্বের জন্য প্রস্তুত করেছেন তাঁদের কয়েকজনকে নিয়েই এই প্রতিবেদন-

শেখ ফজলে নূর তাপস: শেখ ফজলে নূর তাপসের রক্তই হলো আওয়ামী লীগের রক্ত। তার বাবা শেখ ফজলুল হক মনি যখন মারা যায় তখন তিনি ছিলেন নাবালক শিশু। তাপসকে একরকম কোলেপিঠেই মানুষ করেন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। কিন্তু ওয়ান ইলেভেনের আগে তাপস প্রাদপ্রদীপে আসেননি। কিন্তু ওয়ান ইলেভেনে যখন আওয়ামী লীগের ডাকসাইটে নেতারা শেখ হাসিনাকে আইনী সহায়তা দিতে অস্বীকৃতি জানান তখন জুনিয়র আইনজীবী হলেও তাপসই শেখ হাসিনার পাশে দাঁড়ান। তারপর ২০০৮ এর নির্বাচনের পর থেকে পরপর তিনবার এমপি নির্বাচিত হয়েছেন। রাজনীতির মাঠে তাঁকে দেখা যায় কম কিন্তু শেখ হাসিনা নিরবে-নিভৃতে তাপসকে গড়ে তুলছেন আগামীর নেতা হিসেবে।
শেখ ফজলে ফাহিম: ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন বাংলাদেশ শিল্প ও বণিক সমিতি ফেডারেশনের (এফবিসিসিআই) ২২তম সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন শেখ ফজলে ফাহিম। তিনি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সম্মিলিত ব্যবসায়ী পরিষদ প্যানেল থেকে ২০১৯-২১ মেয়াদে নির্বাচিত হন।

শেখ ফজলে ফাহিম শেখ ফজলুল করিম সেলিমের বড় ছেলে। অর্থনীতিকে এগিয়ে নেয়ার প্রত্যয় রয়েছে তার।

শেখ তন্ময়: শেখ তন্ময় শেখ হেলালের ছেলে, তৃতীয় প্রজন্মের আওয়ামী লীগ নেতা। এবারের নির্বাচনে শেখ তন্ময়ের মনোনয়নটি ছিল একটি বিস্ময়। শেখ হাসিনার খুব কাছের এই তরুণকে গড়ে তোলা হচ্ছে আগামীর নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য।

ডা. দিপু মনি: ডা. দিপু মনি তাঁদের তুলনায় তরুণ নন কিন্তু রাজনীতিতে তো অবশ্যই তরুণ। দিপু মনি হলেন সেই ভাগ্যবানদের একজন যিনি প্রথমবার মন্ত্রিত্ব পাওয়ার পর দ্বিতীয় দফায় মন্ত্রিত্ব হারিয়েছেন আবার মন্ত্রিত্বে এ দফায় ফিরে এসেছেন। তারমধ্যে নেতৃত্বের অনেকগুলো গুণাবলি আছে। তিনি শেখ হাসিনার শুধু ঘনিষ্ঠই নন রাজনীতিতে সাজেদা চৌধুরী, জোহরা তাজউদ্দিন, আইভী রহমানের উত্তরসূরি মনে করা হয় তাঁকে। শেখ হাসিনা তাঁকেও যে বিকশিত করতে চান তা স্পষ্ট।

এনামুল হক শামীম: এনামুল হক শামীম ছাত্রলীগের সভাপতি ছিলেন, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত হয়ছেন, এবার প্রথমবারের মত এমপি নির্বাচিত হয়েছেন এবং তাঁকে করা হয়েছে উপমন্ত্রী। শেখ হাসিনার আস্থাভাজন যে সকল প্রাক্তন ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ রয়েছেন তারমধ্যে শামীম একজন। শামীমকে বলা যায় শেখ হাসিনা নিজের হাতেই তৈরি করছেন আগামীর নেতৃত্বের জন্য। এনামুল হক শামীম যদি ভবিষ্যতে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক হন তাহলেও অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না।

ইকবালুর রহিম: ইকবালুর রহিম একসময় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন এবং চারবারের নির্বাচিত এমপি। এনামুল হক শামীমকে সংসদীয় ধারায় তৈরি করছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি। আগামীদিনের রাজনীতিবিদ হিসেবে তাঁকেও প্রস্তুত করছেন শেখ হাসিনা।

খালেদ মাহমুদ চৌধুরী: খালেদ মাহমুদ চৌধুরী আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক। এবার তাঁকে নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী করা হয়েছে। তার মধ্যেও নেতৃত্বের গুণাবলি আছে। সেই নেতৃত্বের গুণাবলিকে শেখ হাসিনা বিকশিত করতে চাইছেন।

মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল: আওয়ামী লীগ সভাপতির অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ মহিউদ্দিন চৌধুরীর ছেলে মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। সন্তানতুল্য এই নবীণ নেতাকে শেখ হাসিনা গড়েপিটে তৈরি করছেন। তাঁকে পাদপ্রদীপে আনতে এতটুকু কার্পণ্য করছেন না। আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বানিয়েছেন। শিক্ষা উপমন্ত্রিত্ব দিয়ে এবার তার নেতৃত্ব বিকাশের সুযোগ করে দিয়েছেন।

এছাড়াও আরও অনেক নেতা আছেন যারা শেখ হাসিনার সাহচর্যে বেড়ে উঠছেন। একটা প্রজন্ম শেষে তাঁরা যখন চলে যাবেন তখন যেন আওয়ামী লীগের নেতৃত্বের ঘাততি না থাকে এবং আওয়ামী লীগের যেন ছন্দপতন না হয় সেজন্য খুব নীরবে শেখ হাসিনা কিছু কিছু নেতৃত্বকে বিকশিত করে তুলছেন এরা তাদেরই কয়েকজন।সূত্র:ভোরের পাতা

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

shares