ইউক্রেনের বিভিন্ন শহরে হামলা জোরদার করেছে রুশ বাহিনী। শনিবার দেশটির রাজধানী কিয়েভের কাছে ইউক্রেনের সামরিক বাহিনীর একটি বিমানঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানো হয়েছে।

এ ছাড়াও ইউক্রেনের বিভিন্ন শহরে গোলাবর্ষণ অব্যহত রেখেছে রাশিয়া। রুশ সেনাবহর কিয়েভের চারপাশ ঘিরে রেখেছে।

যে কোনো সময় তারা হামলা চালাতে পারে। খবর বিবিসির।

কিয়েভের উপকণ্ঠে ভ্যাসিলকিভ শহরের কাছেই ওই বিমানঘাঁটিটির অবস্থান।

ভ্যাসিলকিভের মেয়র বলেন, রুশ ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় বিমানের রানওয়ে ও জ্বালানির ডিপো ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশিত ভিডিওতে বিমানঘাঁটি থেকে কালো ধোঁয়া উড়তে দেখা গেছে।

ইউক্রেনের অন্য শহরগুলোতেও হামলা বাড়িয়েছে রাশিয়া। দেশটির উত্তরাঞ্চলীয় শহর চেরনিহিভ ঘিরে রেখে সেখানে গোলাবর্ষণ চালিয়ে যাচ্ছে রুশ বাহিনী।

চেরনিহিভে পানির সরবরাহ বন্ধ হয়ে গেছে। বহু এলাকায় নেই বিদ্যুতের সরবরাহ।

সূত্র জানায়, ইউক্রেনের দক্ষিণাঞ্চলীয় বন্দরনগরী মিকোলেভে ব্যাপক গোলাবর্ষণের খবর পাওয়া গেছে। মিকোলেভ রাশিয়ার দখলকৃত শহর খেরসন ও দেশটির তৃতীয় বৃহত্তম শহর ওডিসার মাঝামাঝি স্থানে অবস্থিত।

এরইমধ্যে ইউক্রেন দাবি করেছে, রুশ সেনারা ইউক্রেনের একটি হাসপাতালেও হামলা চালিয়েছে। তবে ওই হামলায় তেমন গুরুতর ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে সামরিক আগ্রাসন শুরু করে রাশিয়া। ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভসহ বিভিন্ন শহরে ক্ষেপণাস্ত্র হামলাও শুরু করে রুশ বাহিনী।

যুদ্ধে দুই পক্ষেরই ব্যাপক প্রাণহানীর খবর পাওয়া যাচ্ছে। ইতোমধ্যে যুদ্ধের কারণে ইউক্রেন ছেড়েছেন ২৫ লাখের বেশি মানুষ। তারা প্রতিবেশি দেশগুলোতে আশ্রয় নিয়েছেন।

সূত্র জানায়, রাজধানী কিয়েভসহ রুশ সীমান্তবর্তী ইউক্রেনের শহরগুলো ঘিরে রেখেছে রাশিয়ার সামরিক বাহিনী; হামলা চলছে ইউক্রেনের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর খারকিভেও।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x