ইউক্রেন ন্যাটোতে যোগ দিতে পারবে না বলে মন্তব্য করেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি। তিনি বলেছেন, দেশটির জনগণ বুঝতে পেরেছে যে তারা ন্যাটোতে যোগ দিতে পারবে না।

মঙ্গলবার যুক্তরাজ্য নেতৃত্বাধীন জয়েন্ট এক্সপেডিশনারি ফোর্সের (জেইএফ) প্রতিনিধিদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন। খবর বিবিসি।

জেলেনস্কি বলেন, আমরা বহু বছর ধরে শুনে আসছি যে ন্যাটোর দরজা আমাদের জন্য খোলা। কিন্তু আমরা ইতোমধ্যে জেনে গেছি যে আমরা ন্যাটোতে যোগ দিতে পারব না। এ সত্য আমাদের অবশ্যই স্বীকার করে নিতে হবে এবং আমি আনন্দিত যে আমাদের জনগণও এটি বুঝতে শুরু করেছে।

তিনি বলেন, আমরা এখন শুধু নিজেদের এবং আমাদের যারা সাহায্য করছে তাদের ওপর নির্ভর করব।

ডেনমার্ক, ফিনল্যান্ড, এস্তোনিয়া, আইসল্যান্ড, লাটভিয়া, লিথুয়ানিয়া, নেদারল্যান্ডস, সুইডেন এবং নরওয়ে নিয়ে জেইএফ গঠিত।

তবে এ সভায় জেলেনস্কি পশ্চিমা মিত্রদের ইউক্রেনকে যুদ্ধবিমান সরবরাহের আহ্বান জানান।

এদিকে ইউক্রেনের পার্লামেন্টে দেশটিতে আরও ১ মাসের জন্য সামরিক আইন জারির পক্ষে ভোট গ্রহণ হয়েছে। প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির অনুরোধে ইউক্রেনের পার্লামেন্ট সদস্যরা আগামী ২৬ মার্চ থেকে সামরিক আইন আরও ৩০ দিনের জন্য বাড়ানোর পক্ষে ভোট দিয়েছেন।

এ সময়ে ১৮ থেকে ৬০ বছর বয়সী পুরুষরা দেশ ত্যাগ করতে পারবেন না।

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ইউক্রেন আক্রমণের আগে দাবি করেন, ইউক্রেনকে কখনও ন্যাটোতে যোগ দিতে পারবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x