ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভের উপকণ্ঠে ট্যাংক এবং অন্যান্য সাঁজোয়া যান ধ্বংস করেছে রাশিয়া। ইউরোপীয় দেশগুলো ওইসব ট্যাংক ইউক্রেনকে সরবরাহ করেছিল। রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

স্থানীয় সময় রোববার ভোরে ইউক্রেনের রাজধানী বেশ কয়েকটি বিস্ফোরণে কেঁপে উঠার পর রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এই বিবৃতি দিয়েছে।

এদিকে, শনিবার মিসাইল হামলা চালিয়ে ইউক্রেনের সুমি অঞ্চলের একটি আর্টিলারি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র ধ্বংসের দাবি করেছে রাশিয়া।

এছাড়া রুশ বাহিনী আরেকটি হামলা চালিয়ে ওডেসা অঞ্চলে একটি ‘বিদেশি ভাড়াটে সৈন্যদের’ ফাঁড়ি ধ্বংস করেছে বলেও শনিবারের আপডেটে দাবি করেছে রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়।

অন্যদিকে রুশ বাহিনী ওডেসার কৃষ্ণ সাগর বন্দরের কাছে ইউক্রেনের একটি সামরিক পরিবহন বিমানকে গুলি করে ভূপাতিত করেছে বলেও দাবি করেছে রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। অস্ত্র ও গোলাবারুদ সরবরাহ করার কাজে নিয়োজিত ছিল।

২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে হামলা শুরুর কিছু দিন পর নিজেদের লক্ষ্য পরিবর্তন করে মস্কো। ইউক্রেনের পূর্ব ও দক্ষিণাঞ্চলকে গুরুত্ব দেওয়ার কথা জানানোর পর থেকে দোনবাস অঞ্চলে হামলা জোরদার করেন রুশ সেনারা।

এর পর গুরুত্বপূর্ণ বন্দরনগরী মারিউপোলের দখলে নেয় রাশিয়া। এখন তারা দোনবাস অঞ্চলের বিভিন্ন এলাকায় ব্যাপক হামলা চালাচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x