বিশ্বকাপের শুরুটা রাঙাতে পারেনি আর্জেন্টিনা। হতাশার হারে থামল টানা ৩৬ ম্যাচ অপরাজিত থাকার দৌড়ও।

প্রধমার্ধে আধিপত্য দেখিয়ে বেশ কয়েকবার বল জালে জড়াল আলবেসিলেস্তারা। তবে অফসাইডের কারণে একটিও গোল ধরা হয়নি। বিরতির পর গিয়ে শেষ হয়ে গেল সবকিছুই। পাঁচ মিনিটের ঝড়ে এগিয়ে গেল সৌদি আরব; জিতে নিল ম্যাচটি।
প্রথমার্ধে জয়ের আশা জাগানো আর্জেন্টিনার দ্বিতীয়ার্ধে গিয়ে হার মানতে পারছেন না কোচ লিওনেল স্কালোনি। বিশেষ করে অফসাইডের কারণে বেশ কয়েকটি গোল বাতিল হয়ে যাওয়া। তবে সৌদি আরবের রক্ষণভাগকে ঠিকই কৃতিত্ব দিয়েছেন তিনি। এছাড়া নিজেদের পরবর্তী ম্যাচগুলোতে জয়ের লক্ষ্য নিয়েই মাঠে নামবেন বলেও জানান মেসিরদের কোচ।

ম্যাচপরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে স্কালোনি বলেন, ‘এটা মানা খুবই কঠিন যে, মাত্র চার-পাঁচ মিনিটের মাথায় তারা দুই গোল দিয়ে দিলো। আর তাদের (সৌদি আরবের) এই গোলগুলোই ছিল একমাত্র লক্ষ্যে নেওয়া শট। এখন আর করার কিছুই নেই, আমাদের পরবর্তী দুই ম্যাচ যেভাবেই হোক জিততে হবে। আজ দিনটা খুবই খারাপ, কিন্ত আমাদের মাথা উঁচু করেই সামনে এগোতে হবে। ’

প্রতিপক্ষ যে ডিফেন্সিভ খেলবে তা আগে থেকেই জানা ছিল স্কালোনির। কিন্তু অফসাইডের কারণে গোল না হওয়া হতাশা প্রকাশ করেন তিনি। তবে প্রতিপক্ষের রক্ষণভাগকে ক্রেডিট দিতে ভুলে যাননি আর্জেন্টাইন কোচ, ‘আমরা আগে থেকেই জানতাম তারা কিভাবে খেলবে। পুরো সপ্তাহজুড়ে দলকে রক্ষণমূলক কৌশলেই সাজিয়েছি। কিন্তু নতুন প্রযুক্তির অফসাইডের কারণে সব ভেস্তে গেল। যদিও প্রতিপক্ষ ডিফেন্ডাররা দারুণ খেলেছে। ’

হারের পর এখনও খেলোয়াড়দের সঙ্গে কথা বলেননি স্কালোনি। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেই সবার সঙ্গে কথা বলে পরবর্তী ম্যাচের পরিকল্পনা সাজাবেন বলে জানান স্কালোনি, ‘আমি এখনও কারো সাথেই কথা বলিনি। কারণ ম্যাচে হেরে তারা সবাই কষ্ট পেয়েছে। মূলতঃ এরকম অনাকাঙ্ক্ষিত ফলাফলের কারণেই তারা হতাশায় ভূগছে। পরবর্তীতে পরিস্থিতি ঠিক হলে সবার সঙ্গে বাকি দুই ম্যাচ নিয়ে আলোচনা করবো। ’

আগামী রোববার (২৭ নভেম্বর) লুসাইল স্টেডিয়ামে নিজেদের পরবর্তী ম্যাচে মেক্সিকোর মোকাবেলা করবে আর্জেন্টিনা। গ্রুপপর্বের শেষ ম্যাচে ডিসেম্বরের ১ তারিখ পোল্যান্ডের মুখোমুখি হবে দলটি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x