কুষ্টিয়া প্রতিনিধিঃ

কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে গড়াই নদীর রেলওয়ে লোহার সেতুর ওপর উঠে ট্রেনের সাথে সেলফি তুলতে গিয়ে বিপাকে পড়েছে ৪ বন্ধু। এসময় ট্রেনের ধাক্কায় সেতু থেকে নদীতে পড়ে ছামি হোসেন (১৪) নামের এক স্কুল ছাত্র নিখোঁজের খবর পাওয়া গেছে।

স্থানীয়রা উদ্ধার করেছে বাকী তিনজনকে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের কর্মীরা নিঁখোজ ছাত্রকে উদ্ধার অভিযান অব্যাহত রেখেছে।

শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৫ টার দিকে কুষ্টিয়া – রাজবাড়ি রেলওয়ে সড়কের চাপড়া ইউনিয়নের টোলপ্লাজা এলাকা সংলগ্ন লোহার সেতু এলাকায় এঘটনা ঘটেছে।

নিঁখোজ ছামি হোসেন উপজেলার এলংগী পাড়ার মোঃ হারুন হোসেনের ছেলে। উদ্ধারকৃত তিনজন হলেন একই এলাকার রিপন শেখের ছেলে বাধন হোসেন (১৪), আলমগীর হোসেনের ছেলে আব্দুর রাজ্জাক (১৫) ও মোহাম্মাদ আলীর ছেলে তুহিন হোসেন (১৪)।

ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, শুক্রবার বিকেলে চার বন্ধু স্মার্টফোনে সেলফি তুলতে গিয়েছিল গড়াই নদীর ওপর রেলওয়ে লোহার সেতুতে। সেতুতে ওঠার পর হঠাৎ একটি ট্রেন চলে আসে। ট্রেন আসা দেখে তিন বন্ধু সেতুর ওপর একটি নিরাপদ স্থানে দাঁড়িয়ে পড়ে। আর ছামি নিরাপদ স্থানে পৌছাতে গিয়ে ট্রেনের সাথে ধাক্কা লেগে নদীতে পড়ে যায়। পরে স্থানীয়রা তিনজনকে উদ্ধার করে ফায়ারসার্ভিস কে খবর দেয়। ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা এসে ছামিকে উদ্ধারের চেষ্টা চালিয়ে ব্যর্থ হয়েছে। তবে উদ্ধার অভিযান অব্যাহত রেখেছে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা।

এবিষয়ে কুমারখালী ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) আব্দুল হালিম বলেন, চার বন্ধু রেলওয়ের লোহার সেতুতে ওঠে সেলফি তুলতে গিয়েছিল। এসময় ট্রেন চলে আসলে তিনজন নিরাপদে দাঁড়িয়ে পড়ে। কিন্তু ছামি ট্রেনের ধাক্কায় নদীতে পড়ে যায়।’

তিনি আরো বলেন, ‘ ছামিকে এখন পর্যন্ত পাওয়া যায়নি। উদ্ধার অভিযান অব্যাহত রয়েছে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x