রাশিয়ার কারাগারে বন্দী চোর ও খুনিদের ইউক্রেন যুদ্ধের পাঠাতে চান রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ানের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়, এই চোর ও খুনিদের ইউক্রেনে পাঠাতে রুশ প্যারামিলিটারি দল ওয়েগনার গ্রুপের প্রধান ইয়েভজেনি প্রিগোজিনকে দায়িত্ব দিয়েছেন পুতিন। এই প্রতিবেদন এমন সময় প্রকাশিত হলো যখন পুতিন ইউক্রেনে সেনা বাড়ানোর নির্দেশ দিয়েছেন।

বুধবার ( ২১ সেপ্টেম্বর) টেলিভিশনে দেওয়া এক ভাষণে এক পুতিন বলেন, সর্বশক্তি দিয়ে তার দেশ পশ্চিমাদের প্রতিহত করবে।

রাশিয়ার রাজধানী মস্কো থেকে ৪৮২ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত তানবোভ অঞ্চলের একটি কারাগারের কয়েদি গার্ডিয়ানকে জানিয়েছেন, তাদের কারাগারে হেলিকপ্টারে চড়ে গিয়েছিলেন প্রিগোজিন।

ওই কয়েদি বলেন, আমরা আমাদের চোখকে বিশ্বাস করতে পারছিলাম না যে প্রিগোজিন সত্যিই আমাদের সাথে দেখা করতে এসেছেন। কিন্তু সেখানে তিনি আমাদেরকে ওয়াগনার প্যারামিলিটারি দলে যোগ দিয়ে ইউক্রেন যুদ্ধের যাওয়ার আহ্বান জানান।

গত সপ্তাহে প্রিগোজিনের মতো একজন ব্যক্তির একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছিল। এ নিয়ে মার্কিন সংবাদমাধ্যম নিউ ইয়র্ক টাইমসের একটি প্রতিবেদনে বলা হয়, ওয়াগনার গ্রুপের প্রধান কীভাবে ইউক্রেন যুদ্ধে জয় পাওয়া যায় তা ব্যাখ্যা করতে কয়েদিদের কাছে যান।

গার্ডিয়ানের প্রতিবেদনে বলা হয়, এরইমধ্যে এক সপ্তাহের প্রশিক্ষণ দিয়ে ইউক্রেনে ১২০ কয়েদিকে পাঠিয়েছে রাশিয়া। প্রত্যেক কয়েদিকে প্রেসিডেন্টের পক্ষ থেকে ছয় মাসের ক্ষমা ঘোষণা করা হয়েছে। পাশাপাশি প্রতিমাসে তাদের এক লাখ রুবল বেতন দেওয়া হচ্ছে।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম দ্য ডেইলি বিস্টের প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রিগোজিন বন্দীদের বলেছিলেন যে তারা সব রকমের অপরাধীদের নিয়োগ করছে । এর মধ্যে সিরিয়াল কিলারও রয়েছে।

সূত্র: গার্ডিয়ান, এনডিটিভি

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x