সোশ্যাল মিডিয়ায় এসে জায়েদ প্রসঙ্গে নিজেদের অবস্থান ব্যাখ্যা করেছেন মৌসুমী ও ওমর সানী। এই অবস্থায় ভক্তদের মধ্যে চলছে টানটান উত্তেজনা। তবে এসব উত্তেজনার মধ্যে আসল তথ্য দিলেন ওমর সানী-মৌসুমীর ছেলে ফারদীন। তিনি মিডিয়াকে জানিয়েছেন বাবা-মায়ের মধ্যে আসলেই ঝামেলা চলছে। মা রাগ করেছেন বাবার ওপর।

ফারদিন বলেন, জায়েদ খানের বিষয়ে সবাই মোটামুটি জানেন। শুধু আমার আম্মা না, উনি কমবেশি সবাইকে হ্যারাস করে থাকেন। উনি আমার আব্বুর সাথেও বেয়াদবি করেছেন, আম্মুর সাথেও করেছেন। কিন্তু আম্মু ভেবেছেন, বিষয়টা সিভিল ম্যাটার, এটা ফ্যামিলির মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকুক। আমরা নিজেরাই সলভ করবো।

তিনি বলেন, তবে যতটা বড় করে জিনিসটা দেখা হচ্ছে, ততোটা বড় এটা না। তাদের মধ্যে কোনো ইস্যুজ থাকলে সেটা তাদের মধ্যেই সমাধান হয়ে যাবে। সেখানে বাবাকে কেন্দ্র করে যদি বলে থাকে, তাহলে সেটা রাগ থেকেই হয়তো বলেছে। আমার ঘরের বিষয় এখনও এত বাজে আকারে পরিণত হয়নি বা হবেও না যেটা নিয়ে এত সংবাদ প্রচার করতে হবে। মা সকালে যে অডিও বার্তা দিয়েছেন তা মূলত পুরো বিষয়টাকে শীতল করার জন্য।

তিনি আরও বলেন, আমি মাকে জিজ্ঞেস করেছিলাম ব্যাপারটা নিয়ে। মা বললেন, ঘরের মধ্যে অনেক কিছু নিয়েই মনোমালিন্য থাকে। ছোট বিষয়, বড় বিষয় নিয়ে ইস্যু তৈরি হয়। বিভিন্ন কথার মাঝখানে তার রাগ হয়ত চলে আসতে পারে, অভিমান চলে আসতে পারে। আম্মু আমাকে আরও বলেছে, এটা যেন আরও বড় করে না হয় সেজন্যই এটা করেছি। যা সমস্যা হবে ঘরে, যা সমাধান হবে তাও ঘরে।

ফারদিন বলেন, জায়েদ খান কখনোই তাদের (সানী-মৌসুমী) ভালো চায়নি। নির্বাচনের সময় থেকে শুরু হয়েছে। আমাকে হেনস্তা করেছে। শিল্পী সমিতির নির্বাচনকে কেন্দ্র করে, আব্বু-আম্মুকে পাচ্ছে না, আমাকে ধরছে। আমার রেস্ট্রুরেন্টকে আঘাত করে আমাদের ক্ষতি করার চেষ্টা করেছে। যখন আমাকে দিয়ে ফুলফিল হয় নাই, তখন আম্মুকে দিয়ে চেষ্টা করতে চাইছে, আব্বুকে দিয়ে চেষ্টা করতে চাইছে। খারাপ মানুষ যে কোনোভাবে খারাপ কাজটায় সাফল্য পেতে চাইবে। ওমর সানীর তোলা অভিযোগ তার দ্বারা ঘটানো সম্ভব বলেও মনে করেন ফারদিন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x