দেশের পেশাদার সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করে হয়রানি করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে)।

বিএফইউজের সভাপতি ওমর ফারুক ও ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মো. হেদায়েৎ হোসেন মোল্লা এক বিবৃতিতে রোববার এ অভিযোগ করেন। বিবৃতিতে সাংবাদিক হত্যা ও নির্যাতন এবং সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলার ঘটনাগুলো নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়।

তারা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের যেসব ধারা স্বাধীন সাংবাদিকতার ক্ষেত্রে বাধা হিসেবে কাজ করছে, অবিলম্বে সেসব ধারা বাতিল ও সাংবাদিকদের নামে করা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছেন।

বিবৃতিতে বলা হয়, ৩ জুলাই রাত নয়টার দিকে পত্রিকা অফিসে কাজ করার সময় কুষ্টিয়া জেলা রিপোর্টার্স ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও দৈনিক আমাদের নতুন সময় পত্রিকার জেলা প্রতিনিধি হাসিবুর রহমানের মোবাইল ফোনে একটি কল আসে। এরপর তিনি বেরিয়ে যান। পাঁচ দিন নিখোঁজ থাকার পর ৮ জুলাই তাঁর লাশ উদ্ধার করা হয়। বিএফইউজে এই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িতদের বিচার করার দাবি জানায়।

সংবাদ প্রচার করার কারণে বরগুনার ইমরান হোসেন (একাত্তর টেলিভিশন ও রাইজিংবিডি ডটকম); চট্টগ্রামের মিরসরাই উপজেলার মাহবুবুর রহমান (দৈনিক যুগান্তর ও দৈনিক আজাদী), এনায়েত হোসেন (দৈনিক কালের কণ্ঠ ও দৈনিক পূর্বকোণ), মোহাম্মদ ইউসুফ (বাংলা ট্রিবিউন, দৈনিক ইত্তেফাক ও দৈনিক সাঙ্গু), নয়ন কান্তি (দৈনিক ভোরের পাতা), মো. জাভেদ (দৈনিক স্বদেশ প্রতিদিন), সেকান্দর হোসাইন (দৈনিক সমকাল) ও মো. জহিরুল ইসলামের (আমার সংবাদ) বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয় বিবৃতিতে।

কুষ্টিয়ায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় বাংলা টিভির ভেড়ামারা প্রতিনিধি মো. ওমর ফারুককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে ও ২১ জুলাই ঢাকা পোস্টের কক্সবাজার প্রতিনিধি সাইদুল ফরহাদকে টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অশালীন ভাষায় গালমন্দ করেন বলেও উল্লেখ করা হয়েছে বিবৃতিতে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x