তীব্র দাবদাহে অতিষ্ঠ হয়ে পড়ছে জনজীবন। প্রচণ্ড গরম সহ্য করতে না পেরে অসুস্থ হয়ে পড়ছেন অনেকেই। অতিরিক্ত গরমের কারণে শরীরে দেখা দিচ্ছে নানা রকম সমস্যা। জ্বর থেকে শুরু করে ডায়রিয়া, আমাশয়, পেট ফাঁপা, বমি হওয়াসহ নানা রকম সমস্যা দেখা দিচ্ছে। তাই গরমে নিজেকে সুস্থ রাখতে নিজের প্রতি হতে হবে সচেতন এবং যত্নশীল। মেনে চলতে হবে কিছু নিয়মও।

চলুন জেনে নেই অতিরিক্ত এই গরমে সুস্থ থাকার উপায়-

বাইরের ভাঁজাপোড়া এবং অতিরিক্ত মশলাযুক্ত খাবার যতোটা সম্ভব এড়িয়ে চলাই ভালো।
প্রচুর পরিমাণে পানি পান করতে হবে। প্রতিদিন ৩-৪ লিটার পানি পান করুন।
স্যালাইন,ডাবের পানি, লেবুর শরবত এবং গ্লুকোজ পান করুন বেশি বেশি। ফলে শরীর থেকে ঘাম হয়ে বের হয়ে যাওয়া পানির চাহিদা পূরণ হবে।
বাহিরে গেলে ছাতা ব্যবহার করুন। একটি পানির বোতল সাথে রাখুন সব সময়।
বাহিরে যাতায়াতের জন্য আরামদায়ক কাপড় পরিধান করুন। সেক্ষেত্রে সুতির পোশাক ও হালকা রং এর জামা বেছে নেবেন। এতে করে গরম কম লাগবে আপনি পাবেন সারাদিন আরাম এবং স্বস্তি।
নিয়মিত গোসল করুন।
অতিরিক্ত খাদ্য গ্রহণ করা থেকে বিরত থাকুন।
প্রচুর পরিমাণে শাকসবজি এবং ফল খেতে হবে।
অতিরিক্ত চা কফি পান করা থেকে বিরত থাকুন।
প্রচন্ড রোদে ঘুরে আসার পর ফ্রিজের ঠান্ডা পানি খাওয়া যাবেনা একদমই।
মাংস খাওয়ার পরিমাণ এসময় কমাতে হবে। এছাড়া বিরিয়ানি, পোলাও, খিচুড়ি এবং ফাস্টফুড জাতীয় খাবারও এড়িয়ে চলাই ভালো।
দই, চিড়া, কলা,রুটি, সিদ্ধ ডিম, পাউরুটি, সবজি, নরম খিচুড়ি এসময় খাবারের তালিকায় রাখতে পারেন।
গরমে পান্তাভাত খেতে পছন্দ করেন অনেকেই। পান্তা ভাত গরমে শরীরের জন্য ভালো। যা শরীর ঠাণ্ডা রাখার পাশাপাশি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও বাড়াতেও সাহায্য করে।
ঠান্ডা, সর্দি, কাশি হলে ভিটামিন সি সমৃদ্ধ টক জাতীয় ফল যেমন কমলা, আনারস, মাল্টা, পেয়ারা খেতে হবে বেশি বেশি।
গলা ব্যথার জন্য গরম পানিতে হালকা মধু, আদা, দারুচিনি এবং লবঙ্গ মিশিয়ে খেলে ভালো উপকার পাবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x