বিশেষ প্রতিবেদক:(ধারাবাহিক প্রতিবেদনের প্রথম পর্ব) বান্দরবান সদর উপজেলা ৪নং সুয়ালক ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের সুলতানপুর এলাকার সদ্য সিজারের মাধ্যমে মা হওয়া রিমা আক্তার (২০) এর উপর হত্যার উদ্দেশ্যে বর্বরচিত হামলা চালিয়েছে চট্টগ্রাম সাতকানিয়া উপজেলার ১৪নং পুরানগড় ইউনিয়ন পরিষদের ৫নং ওয়ার্ডের তথা কথিত গ্রাম পুলিশ মো: ইউনুছ(৩৫) (প্রকাশ ইউনুছ চৌকিদার)।

সরজমিনে তদন্ত পূর্বক প্রতিবেদক ঘটনার সত্যতা খুঁজে পেয়েছে। ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী এলাকার প্রবীণ মুরুব্বী ১-বদিউর রহমান যার বয়স (৮০)বছর,২- আবু হোসেন(৪২), ৩-আবু তাহের(৬০),৪-মোঃ জসিম (৪০), ৫-জাহানারা আক্তার৩৪, ৬-তসলিম উদ্দীন(৩৮),৭-মর্জিনা আক্তার(২৯), ৮-কানিজ ফাতেমা(১৮),৯-তৌহিদুল ইসলাম(২৫)’সহ এলাকা বাসীরা প্রতিবেদক/সাংবাদিক কে জানান, গত শুক্রবার ১০জুন সন্ধ্যায় ইউনুছ চৌকিদার আবু তাহেরের জায়গায় এসে সেগুন চারাগাছ উপড়ে ফেললেন, চারাগাছ উপড়ে ফেলার বিষয়ে আবু তাহেরের ছেলে মো: হানিফ(২৭) প্রতিবাদ করলে তথাকথিত ইউনুছ চৌকিদার হানিফকে খারাপ ভাষায় গালাগালি করে এবং তার দিকে তেড়ে এসে তাকে লাঠি দিয়ে পিঠাতে থাকে,হানিফকে চৌকিার লাঠি দিয়ে পিঠাতে দেখে সদ্য সিজারের মাধ্যমে মা হওয়া হানিফ এর ছোট বোন রিমা আক্তার ভাইকে মারার প্রতিবাদ করতে গেলে চৌকিদার ইউনুছ এর স্ত্রী রাজিয়া সুলতানা রিমা আক্তারকে ধরে ফেলে এবং চৌকিদার রিমা আক্তার কে বিশ্রী ভাষায় গালি দিয়ে তার মাথায় দেশীয় অস্ত্র লাঠি দিয়ে আঘাত করে,আঘাতের ফলে রিমা আক্তার এর মাথা ফেটে রক্ত ঝড়তে থাকে, ভাই বোন মারধর সহ্য করতে না পেরে চিৎকার চেচামেচি করতে থাকলে পরিবারের লোকজনসহ এলাকার স্থানীয় লোকজন এসে চৌকিদার ইউনুছ ও তার স্ত্রী রাজিয়া সুলতানার হাত থেকে ভাই বোনকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য বান্দরবান সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। চৌকিদার ও তার স্ত্রী’র মারধরের ফলে গুরুতর রক্তাক্ত জখম প্রাপ্ত আশংকা জনক অবস্থায় ১০জুন হইতে রিমা আক্তার বর্তমানে বান্দরবান সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছে।

এলাকাবাসী আরোও জানান, ইউনুছ চৌকিদার ও তার স্ত্রী রাজিয়া সুলতানা দুইজনই পোশাক কারখানা ( গার্মেন্স) এ চাকরি করতো, ইউনুছ চৌকিদার এর চাকরি পাওয়ার পর থেকে গত দুই বছর যাবত গ্রাম পুলিশ বা চৌকিদার এর চাকরির ক্ষমতার জোরে গত কিছুদিন পুর্বে তার আপন চাচী জাহানারা আক্তার কে লাঠি দিয়ে তলপেটে ও পায়ের উপরের অংশে আঘাত করে, সেই আঘাতের চিহ্ন তার চাচী আজও বয়ে চলেছে। ১০জুন-২০২২ ইং ঘটনার পর থেকে তথা কথিত ইউনুছ চৌকিদার ও তার স্ত্রী রাজিয়া সুলতানা পলাতক রয়েছে। এই ঘটনায় বান্দরবান সদর থানার একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। পুরানগড় ইউনিয়নের তথাকথিত গ্রাম পুলিশ ইউনুছ চৌকিদার সেই অভিযোগের খবর পেয়ে সে ও তার স্ত্রী রাজিয়া সুলতানা যাদেরকে হত্যার উদ্দেশ্যে দেশীয় অস্ত্র লাঠি দিয়ে আঘাত করে রক্তাক্ত জখম করেছে, উল্টো তাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র মূলক মিথ্যা মামলা করার পায়তারা করে যাচ্ছে।

ভুক্তভোগী পরিবার ও এলাকা বাসী তথাকথিত ইউনুছ চৌকিদার ও তার স্ত্রী রাজিয়া সুলতানার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি জানিয়েছেন। এ ব্যাপারে আধুনিক বান্দরবানের রুপকার পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি মহোদয়, বান্দরবানের জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার,সেনা বাহিনী, পুরানগড় ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাহবুবুল হক সিকদার, সাংবাদিক, মানবাধিকার কর্মীসহ সকালের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন ভুক্তভোগী পরিবার ও এলাকা বাসী। তাহলে দেশে আইনের সু-শাসন প্রতিষ্ঠিত হবে,দেশের মানুষ আইনের প্রতি আরও বেশি শ্রদ্ধা শীল হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x