কুয়েত প্রবাসী জামাতাকে আনতে গিয়ে ঢাকার দোহারে মাইক্রোবাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বৈদ্যুতিক খুঁটির সঙ্গে ধাক্কা লেগে শিশুসহ একই পরিবারের তিনজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় শিশুসহ তিনজন আহত হয়েছেন।

আজ ভোর রাত সাড়ে ৪টার দিকে দোহার-নবাবগঞ্জ এলাকার একটি হাসপাতালের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- আবুল কাশেম খান (৬৫), তার নাতনি মোছা. ফারহানা আক্তার (০৮) ও মনির খান বিল্লাল (৫৪)। আহতরা হলেন- মোছা. রেখা আক্তার (২১), তার স্বামী লাভলু (৩৬) ও ফাহিমা আক্তার (৬)। এরা তিনজন ঢামেকে চিকিৎসাধীন।

জানা গেছে, গুরুতর আহত অবস্থায় মনির খান বিল্লালকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে এলে সকাল সাড়ে নয়টার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। এই ঘটনায় ঘটনাস্থলেই আবুল কাশেম ও তার নাতনি ফারহানা (৮) মৃত ঘোষণা করেন।

নিহত মনির খানের ভাই রাশেদ খান জানান, আমার চাচতো ভাইয়ের জামাতা লাভলু কুয়েত প্রবাসী। আজ সকালে কুয়েত থেকে বাংলাদেশে আসেন। আজ ভোরে আমাদের নিজেদের নোহা মাইক্রোবাসে আমরা এয়ারপোর্ট থেকে জামাতা লাভলুকে নিয়ে সবাই আমাদের বাড়ির উদ্দেশ্যে যাচ্ছিলাম। ঢাকার দোহার এলাকার একটি হাসপাতালের সামনে আসামাত্রই গাড়ি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি বিদ্যুৎ খুঁটির সঙ্গে ধাক্কা খায়। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় তাদের সবাইকে স্থানীয় একটি হাসপাতালে নেয়া হয়। ওই হাসপাতালেই দুজনকে মৃত ঘোষণা করেন।

আর গুরুতর আহত অবস্থায় মনিরকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে এলে সকাল সাড়ে নয়টার দিকে তিনি মারা যান। এই ঘটনায় আমাদের জামাই লাভলু ও তার স্ত্রী রেখা ও ফাহিমা ঢামেকে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

তিনি আরো জানান, তাদের বাড়ি দোহার থানার রায়পুরা গ্রামে। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ (পরিদর্শক) মোঃ বাচ্চু মিয়া মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, মরদেহ ঢামেক মর্গে রাখা হয়েছে। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট থানায় অবগত করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x