ইউক্রেনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী এক ভিডিওবার্তায় জানিয়েছেন, যেসব বেসামরিক নাগরিক রাশিয়ার বিরুদ্ধে প্রতিরোধের উদ্দেশ্যে সেনাবাহিনীতে যোগ দিয়েছেন, তাদেরকে সম্মুখ সমরে পাঠানো হবে না।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি শুক্রবার এ খবর জানিয়েছে।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রী অ্যালেক্সেই রেজনিকভ বলেন, ‘আমাদের সেনাবাহিনী শত্রুদের বিরুদ্ধে বেশি কার্যকর। কারণ, তারা অনুপ্রাণিত, প্রশিক্ষিত এবং অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত।’

তিনি জানান, এখন পর্যন্ত এক লাখের বেশি ইউক্রেনীয় দেশটির আঞ্চলিক প্রতিরক্ষা ইউনিটগুলোতে যোগ দিয়েছে।

এছাড়া ইউরোপের বিভিন্ন দেশ থেকে থেকে দুই লাখের বেশি ইউক্রেনীয় যুদ্ধে সহায়তা করার জন্য ইউক্রেনে ফিরেছেন বলেও তার বার্তায় যোগ করেন রেজনিকভ।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রী অ্যালেক্সেই রেজনিকভ বলেন, রুশ সেনারা ইউক্রেনের সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যদের চেয়ে বেশি বেসামরিক নাগরিক হত্যা করেছে। তবে হতাহতের সংখ্যা কোনো নিরপেক্ষ উৎস থেকে যাচাই করা সম্ভব হয়নি।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে সামরিক আগ্রাসন শুরু করে রাশিয়া। ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভসহ বিভিন্ন শহরে ক্ষেপণাস্ত্র হামলাও শুরু করে রুশ বাহিনী।

যুদ্ধে দুই পক্ষেরই ব্যাপক প্রাণহানীর খবর পাওয়া যাচ্ছে। ইতোমধ্যে যুদ্ধের কারণে ইউক্রেন ছেড়েছেন ২০ লাখের বেশি মানুষ। তারা প্রতিবেশি দেশগুলোতে আশ্রয় নিয়েছেন।

সূত্র জানায়, রুশ সীমান্তবর্তী ইউক্রেনের শহরগুলো ঘিরে রেখেছে রাশিয়ার সেনা বাহিনী; হামলা চলছে ইউক্রেনের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর খারকিভেও।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x