নিজস্ব প্রতিবেদক:
রবীন্দ্রনাথ শুধু সাহিত্যিক নন, বাংলা ভাষার অন্যতম প্রাণপুরুষ। বহুমাত্রিকতভাবে আমরা রবীন্দ্রনাথকে বিশ্লেষণ করতে পারি। সাহিত্যের পাশাপাশি তিনি একাধারে একজন দার্শনিক ও শিক্ষাবিদ ছিলেন। বিশ্বসাহিত্যে রবীন্দ্রনাথের অবস্থান অদ্বিতীয়। রবীন্দ্রনাথকে জানতে হবে, শিখতে হবে। রবীন্দ্রনাথ আমাদের জীবনে বহুভাবে প্রাসঙ্গিক। কুষ্টিয়ার রবীন্দ্র মৈত্রী বিশ্ববিদ্যালয় আয়োজিত ২২ শ্রাবণ, ১৪২৯ বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ৮১ তম প্রয়াণ দিবস উপলক্ষে বেলা দশটায় ক্যাম্পােসর মূল মঞ্চে আয়ািজত আলোচনা ও সাংষ্কৃতিক অনুষ্ঠানে রবীন্দ্রনাথের উপর আলোচনা করতে গিয়ে প্রধান আলোচকের বক্তব্যে এসব কথা বলেন, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের প্রফেসর ড. হাবিবুর রহমান (রহমান হাবিব)।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. শাহজাহান আলী। বিশ্ববিদ্যালয়ের মানবিক ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মো. শহীদুর রহমানের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার ড. মোছা. ইসমত আরা খাতুন, ইংরেজি বিভাগের প্রধান প্রফেসর নূর উদ্দীন আহমেদ। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বাংলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক এস এম হাসিবুর রশিদ তামিম। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন বাংলা বিভাগের প্রভাষক এম এ গাফফার মিঠু ও বিভাগের শিক্ষার্থী গুলশান আরা গৌধুলী। আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে রবীন্দ্র মৈত্রী বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা, কর্মচারী বৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x