ইউক্রেন-রাশিয়ার প্রতিনিধিদের মধ্যে দ্বিতীয় দফায় শান্তি আলোচনা হচ্ছে আজ। এরই মধ্যে ইউক্রেন ইস্যুতে ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রনের সাথে ফোনে কথা বলেছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন।

বৃহস্পতিবার এ দু’নেতার মধ্যে কথা হয়। এরপরই পুতিনের দফতর থেকে এক বিবৃতি দেয়া হয়।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ক্রেমলিনের লক্ষ্য হল ইউক্রেনের নিরস্ত্রীকরণ এবং নিরপেক্ষতা। যত দ্রুত তারা এটি মেনে নেবে ততই তাদের পক্ষে ভাল। দেরি হলেই রাশিয়ার চাহিদার তালিকা বাড়তে থাকবে। আর যে কোন মূল্যে রাশিয়া তার সামরিক লক্ষ্য অর্জন করেই ছাড়বে।

কিয়েভের সঙ্গে আলোচনার প্রসঙ্গ উল্লেখ করে বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ওই আলোচনার সময় ইউক্রেনের প্রতিনিধিদের রাশিয়ার শর্তাবলীর বিস্তারিত রূপরেখা দেয়া হয়েছে। কিন্তু আবার আলোচনায় বসার মানে তাদের কাছে ‘সময় নষ্ট’। তা করলে ক্রেমলিনের উপর শর্তের তালিকা দীর্ঘ হবে।

ওই বিবৃতিতে দাবি করা হয়েছে, ইউক্রেনে রাশিয়ার ‘বিশেষ অভিযান’ ‘পরিকল্পনা অনুযায়ী’ চলছে। রুশ বাহিনী বেসামরিক নাগরিকদের সুরক্ষার জন্য যথাসাধ্য চেষ্টা করছে।

ক্রেমলিনের দাবি, তাদের এই ‘বিশেষ অভিযান’ ইউক্রেন দখলের উদ্দেশ্যে নয়। প্রতিবেশীর সামরিক ক্ষমতা ধ্বংস করার জন্য, যা দখলে রেখেছে সে দেশের জাতীয়তাবাদী শক্তি। সূত্র- আনন্দবাজার

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x