রাহাত মামুন,চট্টগ্রাম (রাঙ্গুনিয়া) সংবাদদাতা: চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ায় প্রতিবেশীর গাছে আম পাড়ায় বাঁশ দিয়ে এক শিশুকে আঘাত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এতে তৌহিদুল ইসলাম (১১) নামে ওই শিশুর বাম চোখ গুরুতর জখম হয়েছে। শিশুটির চোখ নষ্ট হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা করছেন করছেন চিকিৎসকেরা।

বুধবার (৮ জুন) সকালে রাঙ্গুনিয়া থানার (ওসি) মো. মাহাবুব মিলকী ঘটনাটি নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার চন্দ্রঘোনা-কদমতলী ইউনিয়নের বনগ্রাম লালপাহাড় এলাকায়।

এ ঘটনায় অভিযুক্ত প্রতিবেশী বুলু আক্তারসহ (৪৫) তিনজনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করা হয়েছে। বর্তমানে শিশুটি চট্টগ্রাম পাহাড়তলীর ফয়েজলেক চক্ষু হাসপাতালে দ্বিতীয় তলার ১১ নম্বর সিটে চিকিৎসাধীন রয়েছে। তার বাম চোখে ব্যান্ডেজ। সে ব্যথায় কাতরাচ্ছে।

শিশু তৌহিদের মা তানজু আক্তার জানান, তার সন্তানের বাম চোখের অবস্থা গুরুতর। চোখ বাঁচাতে দ্রুত উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন চিকিৎসকরা।

তৌহিদদের স্থায়ী বাড়ি উত্তর রাঙ্গুনিয়া মোগলেরহাট এলাকায়। বাবা-মায়ের সঙ্গে সে চন্দ্রঘোনা বনগ্রাম লালপাহাড় এলাকায় থাকে। তার বাবার নাম আনোয়ার হোসেন। অন্যদিকে অভিযুক্ত বুলু আক্তার ওরফে বুলবুলির বাড়িও একই এলাকায়। তিনি ওই এলাকার খোরশেদ আলমের স্ত্রী।

জানা যায়, কয়েকদিন আগে তৌহিদ বন্ধুদের সঙ্গে খেলতে গিয়ে বুলু আক্তারের আম বাগানে একটি গাছে উঠে আম পাড়ছিল। বাগান মালিক বুলু আক্তার তা টের পেরে বাঁশ দিয়ে তৌহিদকে বাঁশ দিয়ে গুঁতা দেয়। এক পর্যায়ে বুলু আক্তার ও তার দুই সহযোগীর বাঁশের গুঁতা খেয়ে তৌহিদ আম গাছ থেকে পড়ে যায়। এতে গুরুতর আহত হলে তাকে প্রথমে স্থানীয় চিকিৎসকের কাছে, পরে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। তার বাম চোখের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় পরবর্তীতে চট্টগ্রাম পাহাড়তলীর ফয়েজলেক চক্ষু হাতপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনার পর থেকে পলাতক রয়েছে বুলু আক্তার ও তার অপর দুই সহযোগী।

এ বিষয়ে রাঙ্গুনিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাহাবুব মিলকী বলেন, এ ঘটনায় থানায় ভুক্তভোগী মামলা দায়ের করেছেন। জড়িতদের ধরতে অভিযান চালানো হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x