চলতি মাসের ১৯ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত হবে ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের শেষকৃত্য অনুষ্ঠান। উক্ত অনুষ্ঠানে যোগ দিতে আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর যুক্তরাজ্যে যাবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রোববার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা যায়, আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর লন্ডনে যাবেন প্রধানমন্ত্রী এবং ১৯ সেপ্টেম্বর শেষকৃত্য অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা জানান, জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে যোগ দেয়ার আগে প্রধানমন্ত্রী সাধারণত লন্ডনে অবস্থান করে থাকেন। সেখান থেকে ১৮ সেপ্টেম্বর তার নিউ ইয়র্কে যাওয়ার কথা ছিলো। কিন্তু সেখানে একদিন বাড়তি থেকে ১৯ সেপ্টেম্বর রানির শেষকৃত্য অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন।

তিনি আরও বলেন, জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদ অনুষ্ঠানে যোগ দেয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রী ১৫ থেকে ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত দেশের বাইরে অবস্থান করবেন। এরমধ্যে আগামী ২৩ সেপ্টেম্বর সাধারণ পরিষদে বরাবরের মতো বাংলা ভাষায় বক্তব্য রাখবেন বাংলাদেশ সরকার প্রধান।

ব্রিটেনের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি সময় সিংহাসন অলঙ্কৃত করে রেখেছিলেন রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ। মাস কয়েক আগেই তার সিংহাসনে আরোহণের ৭০ বছর উদযাপন করা হয়েছিলো। গত ৯ সেপ্টেম্বর ৯৬ বছর বয়সে মারা যান তিনি।

এদিকে রানির মৃত্যুর পর সেন্ট জেমস প্রাসাদে এক রাজকীয় অনুষ্ঠানে রাজা হিসেবে শপথ গ্রহণ করেন চার্লস তৃতীয়। শপথ গ্রহণের পর তিনি সমবেত গণ্যমান্য ব্যক্তিদের সম্বোধন করে, রাজা চার্লস তার মা রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের এবং তার স্ত্রী রানি ক্যামিলার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এসময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন প্রায় ২০০ জন গণ্যমান্য ব্যক্তি।

স্থানীয় সময় শনিবার সকালে সেন্ট জেমসেস প্রাসাদে অ্যাকসেশন কাউন্সিল নামে একটি আনুষ্ঠানিক পরিষদের সামনে রাজা হিসেবে তৃতীয় চার্লসের অভিষেক হয়। এই অ্যাকসেশন কাউন্সিল ব্রিটিশ রাজপরিবারের সদস্য, দেশটির প্রধানমন্ত্রী ও অন্যান্য জ্যেষ্ঠ রাজনীতিবিদগণ এবং ক্যান্টারবুরির আর্চবিশপকে নিয়ে গঠিত।

তৃতীয় চার্লসকে রাজা ঘোষণার আগে ব্রিটিশ পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ হাউস অব কমন্সের নেতা ও লর্ড প্রেসিডেন্ট পেনি মর্ডান্ট রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের মৃত্যু আনুষ্ঠানিক ঘোষণা করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x