রুশ সৈন্যদের ইউক্রেনে ঢোকার জন্য পথ করে দিয়েছিল বেলারুশ। এবার দেশটি সরাসরি রাশিয়ান আক্রমণে সহায়তা করার জন্য ইউক্রেনে নিজস্ব সৈন্য পাঠানোর প্রস্তুতি শুরু করেছে। খবর বিবিসির।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন মার্কিন কর্মকর্তার বরাত দিয়ে ওয়াশিংটন পোস্ট বলেছে যে, বেলারুশ সেনা মোতায়েনের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে, যা সোমবার থেকে শুরু হতে পারে। কিয়েভ ইন্ডিপেনডেন্ট একাধিক সূত্রের বরাত দিয়ে বলেছে, বেলারুশের প্যারাট্রুপারদের মোতায়েন করা হতে পারে।

রাশিয়ার দীর্ঘদিনের মিত্র বেলারুশের উত্তরে ইউক্রেনের সীমান্ত রয়েছে। দেশটির ‘স্বৈরাচারী সরকার’ রবিবার তার অ-পারমাণবিক অবস্থা পরিত্যাগ করার জন্য ভোট দিয়েছে। এতে করে রাশিয়ার জন্য সেখানে পারমাণবিক অস্ত্র স্থাপনের পথ সুগম হলো।

এর আগে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি রবিবার বলেন, বেলারুশের প্রেসিডেন্ট আলেক্সান্ডার লুকাশেঙ্কো তাকে ফোন কলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন যে ইউক্রেনে সেনা পাঠানো হবে না।

এদিকে সোমবার বেলারুশ সীমান্তে রাশিয়ার সঙ্গে ইউক্রেনের আলোচনার কথা রয়েছে। তবে এই আলোচনা নিয়ে তেমনটা আশাবাদী নন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট।

অবশ্য সংক্ষিপ্ত টেলিভিশন বিবৃতিতে জেলেনস্কি বলেন, আমি সব সময়ের মতো অকপটে বলবো- এই বৈঠক থেকে যে ফলাফল আসবে সত্যিই তা বিশ্বাস করি না। তবে তাদের চেষ্টা করতে দিন।

তিনি বলেন, ইউক্রে নের কোনো নাগরিকের যেন সন্দেহ না থাকে যে, যুদ্ধ থামাতে আমি প্রেসিডেন্ট হিসেবে ছোট কোনো সুযোগ কাজে লাগানোর চেষ্টা করিনি।

এরই মধ্যে ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভ ও দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর খারকিভে নতুন করে গোলাবর্ষণের খবর পাওয়া গেছে। কিছুটা শান্ত থাকার পর সোমবার সকালে ফের বিস্ফোরণের শব্দ শোনা যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x