লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে শহীদ মিনারে ২১ ফেব্রুয়ারির সহিংসতার ঘটনায় উপজেলা সহ-সভাপতি ও সাবেক যুবদল নেতাসহ বিএনপির দুই শতাধিক নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। সোমবার (২১ ফেব্রুয়ারি) রাতে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা জুম্মান সোলতান বাদী হয়ে এ মামলাটি করেন। রাতেই পুলিশ অভিযান চালিয়ে বিএনপির দুই কর্মীকে আটক করে। মঙ্গলবার (২২ ফেব্রুয়ারি) সকালে রায়পুর থানার (ওসি) শিপন বড়ুয়া মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

মামলার এজাহার সুত্রে ও পুলিশ জানান, আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে শহীদ মিনারে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে গিয়ে বিএনপির নেতাকর্মীরা প্রধানমন্ত্রীসহ আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে উশৃঙ্খল শ্লোগান দিয়ে স্থানীয় আওয়ামী লীগের লোকজনের উপর অতর্কিত হামলা ও ভাঙচুর চালায়। এতে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা জুম্মান সোলতানসহ যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও স্বেচ্ছাসেবকলীগের নেতাকর্মীরা আহত হয়। এ ঘটনায় রাতে আহত জুম্মান সোলতান বাদী হয়ে বিএনপির উপজেলা সহ-সভাপতি সফিক ভূইয়া ও সাবেক উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক সফিকুল আলম আলমাসসহ ৫১ জনের নাম উল্লেখ করে আরও ১৫০ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে এ মামলা করে।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল খোকন বলেন, ‘বিএনপির নেতাকর্মীরা আমাদের নেত্রী ও দলের বিরুদ্ধে উশৃঙ্খল শ্লোগান দিয়ে লাঠিসোঠা নিয়ে আমাদের লোকজনের উপর অতর্কিত হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করে। এ সময় আমাদের ৮জন নেতা-কর্মী আহত হন।’

রায়পুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শিপন বড়ুয়া  বলেন, ‘হামলা ও ভাঙচুরের অভিযোগে একটি মামলা হয়েছে। অভিযান চালিয়ে দুই আসামিকে আটক করা হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।’

প্রসঙ্গত ২১ ফেব্রুয়ারি মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে শহীদ মিনারে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে গিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েছে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির নেতাকর্মীরা। এ সময় দুই দলের অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরাও অংশ নেয়। দফায়-দফায় সংঘর্ষ উভয় দলের অন্তত ২০ নেতাকর্মী আহত হয়েছে। এরমধ্যে উভয়পক্ষের ১৩ নেতাকর্মী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিয়েছে। সকাল ৯টা থেকে ১১ পর্যন্ত উপজেলা পরিষদের সড়কের ডাকবাংলোর সামনে, প্রধান সড়ক ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।আওয়ামী লীগ-বিএনপি সংঘর্ষ। ছবি: সংগৃহীত

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x