কয়েক দিন ধরেই শোনা যাচ্ছে সালমান খানকে হত্যার হুমকি দেওয়া হচ্ছে। এবার জানা গেল সালমান খানকে হত্যার চেষ্টাও করা হয়েছে, কিন্তু অল্পের জন্য রক্ষা পেয়েছেন ভাইজান।

ভারতীয় গণমাধ্যম জানায়, সালমান খানকে প্রাণে মারার জন্য তার বাড়ির সামনে পাঠানো হয়েছিল শার্পশুটার। আর এই গোটা ঘটনার নেপথ্যে রয়েছে গ্যাংস্টার লরেন্স বিষ্ণোই।

কিছুদিন আগে শোনা গিয়েছিল, সালমান খান এবং তার বাবাকে খুনের হুমকি দেওয়া হয়েছে চিঠিতে। এ কারণে বলিউড সুলতানের নিরাপত্তাও বাড়ানো হয়। থানায় গিয়ে আবার ভাইজান জানিয়েও আসেন তার কোনও শত্রু নেই। কিন্তু এখন শোনা যাচ্ছে, হুমকি চিঠির জন্য সালমানের নিরাপত্তা বাড়ানো হয়নি। এর নেপথ্য়ে রয়েছে অন্য কারণ। সুপারস্টারের বাড়ির সামনেই তাকে প্রাণে মারার চেষ্টা করা হয়। আর এর নেপথ্যে রয়েছে লরেন্স বিষ্ণোইয়ের গ্যাং।

সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী সালমানকে মারার জন্য এক শার্পশুটারকে টাকা দেওয়া হয়েছিল। সকালে অনেক সময়ই সাইকেলে চড়ে মুম্বাইয়ের রাস্তায় বেরিয়ে পড়েন সালমান। সেই সময় তার নিরাপত্তা সবচেয়ে কম থাকে। এই সুযোগে সকালেই ভাইজানকে মারার পরিকল্পনা করেছিল ওই শার্পশুটার। হকিস্টিকের খাপে একটি বন্দুক নিয়ে সালমানের বাড়ি ‘জলসা’র সামনে অপেক্ষা করছিল সে। ঘটনাচক্রে সেদিন সকালে সালমানের একটি অনুষ্ঠানে যাওয়ার কথা ছিল। বলিউডের ‘দাবাং’ স্টারকে সেখানে নিয়ে যেতে পুলিশের একটি এসকর্ট গাড়ি এসেছিল। পুলিশ দেখেই ভয় পেয়ে যায় শার্পশুটার। পরিকল্পনা বাতিল করে।

শোনা গিয়েছে, সিধু মুসেওয়ালা হত্যাকাণ্ডের তদন্ত করতে গিয়েই সালমান খুনের পরিকল্পনা সম্পর্কে জানতে পারে পুলিশ। সিধুর মৃত্যুতেও লরেন্স বিষ্ণোইয়ের যোগ রয়েছে বলে সন্দেহ করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, কৃষ্ণসার হরিণ হত্যাকাণ্ডে সালমানের নাম জড়ানোতেই তার প্রতি লরেন্সের ক্ষোভ তৈরি হয়েছিল। যোধপুরের যে সম্প্রদায়ের কাছে কৃষ্ণসার হরিণ পূজনীয়, সেই সম্প্রদায়েরই প্রতিনিধি ছিল লরেন্স। ২০১৮ সালেও একবার সালমানকে খুন করার হুমকি দিয়েছিল সে। যদিও পুলিশি হেফাজতে থাকা লরেন্সের দাবি, এমন কোনও ঘটনার সঙ্গে সে জড়িত নয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x