আব্দুর রহিম,সাতক্ষীরা আদালত থেকে: সাতক্ষীরায় কলারোয়ায় বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার গাড়িবহরে হামলার ঘটনায় অস্ত্র আইনে করা মামলার বিচার শুরু হয়েছে।
বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ এবং স্পেশাল ট্রাইব্যুনাল-৩ এর বিচারক বিশ্বনাথ মণ্ডল এ মামলার অভিযোগ গঠনের মধ্য দিয়ে বিচার শুরুর আদেশ দেন। আগামী ২৯ জুন থেকে শুরু হবে সাক্ষ্যগ্রহণ।
এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন আদালতের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী আব্দুল লতিফ।
তিনি বলেন, অস্ত্র আইনের ১৯ এর ক্যাপিটাল-এ, ১৯-এর এফ ও ২৩ ধারায় মামলাটির অভিযোগ গঠন করা হয়েছে। আমরা আদালতে প্রাথমিকভাবে প্রমাণ করতে পেরেছি, শেখ হাসিনার গাড়িবহরে হামলার সময় বোমা বিস্ফোরণ করা হয়েছিল। অস্ত্র ব্যবহার করা হয়েছিল।
আজ অস্ত্র আইনে অভিযোগ গঠনের পাশাপাশি বিস্ফোরক আইনের মামলায় দুজন সাক্ষী হাজিরা দিয়েছেন। দুটি মামলার বিচার একই সঙ্গে চলবে বলেও জানান তিনি।
আইনজীবী আব্দুল লতিফ জানান, অভিযোগপত্রে থাকা ৫০ জনের মধ্যে একজন মারা গেছেন। ৯ আসামি পলাতক। বাকিরা অভিযোগ গঠনের সময় কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিলেন।
উল্লেখ্য, ২০০২ সালের ৩০ আগস্ট ধর্ষণের শিকার কলারোয়ার একজন মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রীকে দেখতে কেন্দ্রীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে আসেন সাবেক বিরোধীদলীয় নেতা ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পরে বেলা ১২টার দিকে তিনি তার সফরসঙ্গীদের নিয়ে কলারোয়া হয়ে যশোরের উদ্দেশে রওনা দেন। পথিমধ্যে কলারোয়া বাজারে বিএনপি অফিসের সামনে পৌঁছালে তাকে প্রাণনাশের চেষ্টায় হামলা করে সন্ত্রাসীরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x