শ্রীলঙ্কার ২৬তম প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ৭৩ বছর বয়সী রনিল বিক্রমাসিংহে দায়িত্ব নেওয়ার পর ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। এনডিটিভি জানিয়েছে, ভারতের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্কের জন্য উন্মুখ হয়ে আছেন রনিল।

অর্থনৈতিক সহায়তার জন্য ভারতের প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন শ্রীলঙ্কার নতুন প্রধানমন্ত্রী। স্বাধীনতার পর বর্তমানে সবচেয়ে খারাপ অর্থনৈতিক সংকট মোকাবেলা করছে দেশটি।

বিক্রমাসিংহে তার মেয়াদে ভারতের সঙ্গে আরও ভালো সম্পর্ক তৈরিতে প্রস্তুত।
গতকাল বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেওয়ার পর এক ধর্মীয় অনুষ্ঠানে বিক্রমাসিংহে বলেন, আমি আরো সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্ক চাই এবং প্রধানমন্ত্রী মোদিকে ধন্যবাদ জানাতে চাই।

বিরোধী ইউনাইটেড ন্যাশনাল পার্টির (ইউএনপি) নেতা রনিল বিক্রমাসিংহে জানান, আপাতত তিনি অর্থনৈতিক সংকট মোকাবিলার দিকেই শুধু নজর দেবেন।

তিনি বলেছেন, আমি এই সমস্যা মিটিয়ে দেশের জনগণের জন্য পেট্রোল, ডিজেল ও বিদ্যুৎ সরবরাহ নিরবচ্ছিন্ন রাখতে চাই।

১৯৪৮ সালে ব্রিটেনের কাছ থেকে স্বাধীনতা পাওয়ার পর এবারই প্রথম শ্রীলঙ্কা এমন ভয়াবহ অর্থনৈতিক সংকটে পড়েছে। যথেষ্ট পরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ না থাকাকে এর মূল কারণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।

বিক্রমাসিংহে বলেন, যে দায়িত্ব কাঁধে নিয়েছি তা আমি পালন করবো।

তিনি আরো বলেছেন, সময় মতো আমি সংখ্যাগরিষ্ঠের সমর্থন অর্জন করব। প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপক্ষের সচিবালয়ের বাইরে এক মাসেরও বেশি সময় ধরে চলতে থাকা বিক্ষোভে কোনো বাধা দেওয়া হবে না। তারা চাইলে আমি তাদের (বিক্ষোভকারীদের) সঙ্গে কথা বলব।

তিনি আরো বলেন, যদি অর্থনৈতিক সংকটের মোকাবিলা করতে পারি, তাহলে বিক্ষোভকারীদেরও মোকাবিলা করতে পারব।

অন্তর্বর্তী প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহের সরকারে সব দলের অংশগ্রহণের কথা আছে। পরবর্তী নির্বাচনের আগে পর্যন্ত এই সরকার কাজ করবে।
সূত্র: এনডিটিভি।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x