বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক: বাবা মায়ের স্বপ্ন ছিলো ছেলে বিসিএস ক্যাডার হবে। পরীক্ষাও দিয়েছিলেন। আর কিছুদিন পরেই উচ্চশিক্ষার স্নাতকোত্তর ডিগ্রীও নিয়ে ফেলতেন। ১৯ জুন থেকেই ছিলো পরীক্ষা। কিন্তু সব স্বপ্নই ফিকে করে পৃথিবীকে বিদায় জানালেন রাফিন। ১৭৫ একরের ক্যাম্পাসে আর গাইবে না সে, মাতাবে না কোনো নাটক কিংবা আড্ডার মঞ্চে।

হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে মীর মোঃ রাফিন নামে ওই শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার (০৩ জুন) সকালে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে তার মৃত্যু হয়।

জানা যায়, ওই শিক্ষার্থীর নাম মীর মোঃ রাফিন। তিনি রাজবাড়ী জেলার ভবানীপুর গ্রামের মীর আলমগীরের ছেলে। পরিবারে দুই ভাইবোনের মধ্যে রাফিন ছিলেন বড়। সে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের লোক প্রশাসন বিভাগের ২০১৬-১৭( বি এস এস) শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী।

সহপাঠী ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রাফিন বেশ কিছুদিন ধরে হৃদরোগে আক্রান্ত ছিল। শুক্রবার সকালে হঠাৎ করেই তার বুকে প্রচন্ড ব্যথা শুরু হয়। পরে রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে নেওয়ার পথে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। এদিকে আসরের নামাজের পর জানাজা শেষে রাফিনকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হবে।

বিভাগের সভাপতি প্রফেসর ড. লুৎফর রহমান মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, “এ বছরই রাফিনের স্নাতোকোত্তর শেষ হয়ে যেত। ওই ব্যাচটির ১৯ জুন থেকে পরীক্ষাও শুরু হবে। তার মৃত্যুতে লোক প্রসাশন বিভাগ শোকাহত। তার মাগফিরাত ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করছি।”

প্রসঙ্গত, শিক্ষার্থীর এই অকাল প্রয়াণে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মাহবুবুর রহমান, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. আলমগীর হোসেন ভূঁইয়া সহ বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবারের সকলে শোক প্রকাশ করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x