শেষ পর্যন্ত লড়েও বাংলাদেশকে হার থেকে বাঁচাতে পারেননি সাকিব আল হাসান। ডমিনিকা সফরে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে ৩৫ রানে হেরেছে টাইগাররা।

বোলিং-ব্যাটিংয়ে ফের ‘নখদন্তহীন’ বাঘ হয়ে ছিলেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদরা। তবে ব্যতিক্রম সাকিব। সিরিজে পিছিয়ে পড়ার ম্যাচেও ব্যাট হাতে উজ্জ্বল ৩৫ বছর বয়সী অলরাউন্ডার।

গড়েছেন এক অনন্য রেকর্ডও। একমাত্র ক্রিকেটার হিসেবে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে ২০০০ রান ও ১০০ উইকেটের মালিক হলেন সাকিব। এই কীর্তি নেই আর কারও।

উইন্ডসর পার্কে উইন্ডিজের বিপক্ষে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে বল হাতে অবশ্য বেশ খরচে ছিলেন তিনি। ৪ ওভারে দেন ৩৮ রান। তবে শামরাহ ব্রুকসকে দেন ডাক উপহার। টি-টোয়েন্টিতে এ নিয়ে সাকিবের উইকেট সংখ্যা দাঁড়াল ১২০। বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ উইকেটের মালিকও তিনি।

বোলিংয়ে তেমন সুবিধে করতে না পারলেও ব্যাট হাতে উজ্জ্বল ছিলেন সাকিব। খাদের কিনারে দাঁড়ানো বাংলাদেশের উইকেট আগলে রেখে পেয়েছেন টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারের ১০ ফিফটি। তার ৫২ বলে ৬৮ রানের ইনিংসটি সাজানো ৫ চার ও ৩ ছয়ে।

সেই সঙ্গে মাহমুদউল্লাহর পর দ্বিতীয় বাংলাদেশি হিসেবে ২০০০ রানের মাইলফলকে পা রাখলেন সাকিব। টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারে পেয়েছেন ২০০ চারের দেখাও। সীমিত ওভারের এই ফরম্যাটে সাকিবের রান ২০০৫। তার চেয়ে ১৬ রানে এগিয়ে মাহমুদউল্লাহ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x