02 December, 2020
শিরোনাম

বাসে আগুন, বিএনপি নেতা নিতাই রায় চৌধুরীর ফোনালাপ ফাঁস

 13 Nov, 2020   117 বার দেখা হয়েছে

 নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রিন্ট

হঠাৎ করে রাজধানীর ঢাকায় বিভিন্ন জায়গায় বাসে আগুন দেওয়া হয়েছে। ঘটনার পর এ বিষয়ে একটি ফোনালাপ ফাঁস হয়েছে। যা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে এসেছে। নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে যে গাড়িতে আগুন দেওয়া হয়েছে তাতে যুবদলের কথা উঠে এসেছে। আগুন দেওয়ার বিষয়টি বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান নিতাই রাই চৌধুরীকে অবহিত করেন দলটির এক নেত্রী ফরিদা ইয়াসমিন।

ফোনালাপটি তুলে ধরা হলো:

ফরিদা: দাদা আদাব। আমি ফরিদা বলছি। পার্টি অফিসে তো আমি আটকা পড়েছিলাম এতক্ষণ। ওই যে গাড়ি পুড়াইছে ছেলেপেলে। ১১টার সময় আসছি প্রেস কনফারেন্সে, এখন তো এখানে আটকা পড়ে দেরি হয়ে গেলো।

নিতাই: গাড়ি পুড়াই ফেলছে?

ফরিদা: হ্যাঁ...হ্যাঁ...।

নিতাই: কোন জায়গা?

ফরিদা: এই যে পার্টি অফিসের সামনেই, স্টাফ গাড়ি পুড়াইছে। র‌্যাব, পুলিশ সব পুড়া পার্টি অফিস ঘেরাও দিয়ে রাখছে।

নিতাই: গাড়ি কোনটা পুড়াইছে?

ফরিদা: স্টাফ...পুলিশের স্টাফ গাড়ি থাকে না? ওগুলোর মধ্যে আগুন দিছে যুবদলের ছেলেরা।

নিতাই: কয়টা, কয়টা গাড়ি?

ফরিদা: পার্টি অফিসের সামনেই। একটা গাড়ি।

বৃহস্পতিবার বেলা ১২টা থেকে সাড়ে চারটা। এই সাড়ে চার ঘণ্টার মধ্যে রাজধানীর অন্তত ৯টি স্থানে বাসে অগ্নিসংযোগ করা হয়। অনেকটা শান্তিপূর্ণ পরিবেশে হঠাৎ এই অগ্নিসংযোগের ঘটনায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে রাজধানীজুড়ে। তবে ঘটনার পর কাউকে আটক করতে পারেনি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। ঘটনার পর বেশ কয়েকটি স্পট ঘুরে দেখা গেছে, প্রায় একই কায়দায় বাসে আগুন দেয়া হয়। যেসব বাসে যাত্রী কম ছিল এমন বাসে আগুন দেয়া হয়। আগুন দেয়ার জন্য নিরাপদ স্থান বেছে নেয়া হয়। আগুনের ঘটনায় কোথাও কেউ আহত হয়নি।

অনেকে বলছেন এই অগ্নিসংযোগের ঘটনাগুলো দক্ষ হাতে ঘটানো হয়েছে। হঠাৎ এমন ঘটনা রহস্যজনক বলে মনে করছেন অনেকে। ফায়ার সার্ভিস সূত্র বলছে, দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে তারা প্রথম বাসে আগুন লাগার কথা জানতে পারেন। তারপর কিছুক্ষণ পরপরই বংশাল, কাঁটাবন, মতিঝিল, গুলিস্তান, সচিবালয় মোড়, প্রগতি সরণিসহ আরো কয়েকটি স্থানে আগুন লাগার খবর পান। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন।

পুলিশের মতিঝিল জোনের পুলিশ কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, মতিঝিল ও পল্টন এলাকায় মোট চারটি বাসে আগুন দেয়া হয়েছে। তারমধ্যে একটি ভ্যাট/ট্যাক্স অফিসের স্টাফ বাস, একটি অগ্রণী ব্যাংকের স্টাফ বাস। আর বাকিগুলোর মধ্যে একটি পাবলিক বাস ও অন্যটি বিআরটিসির বাস। পুলিশের রমনা জোনসূত্র জানিয়েছে, প্রেস ক্লাবে রজনীগন্ধা পরিবহনের একটি বাসে ও শাহবাগে আজিজ সুপার মার্কেটের পাশে কাঁটাবন সংলগ্ন দেওয়ান পরিবহনের একটি বাসে আগুন দেয়া হয়। লালবাগ বিভাগের পুলিশ জানিয়েছে বংশালে দুপুর আড়াইটার দিকে দিশারী পরিবহনের একটি বাসে আগুন দেয়ার ঘটনা ঘটেছে।

পুলিশ বলছে, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ও সহিংসতার উদ্দেশ্যেই একটি মহল বাসে আগুন ধরিয়ে দিয়ে জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টি করার চেষ্টা করছে। এসব ঘটনায় সন্দেহজনক কয়েকজনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

পূর্বপশ্চিমবিডি

সম্পর্কিত খবর
সব খবর
© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | বাংলা৫২নিউজ.কম
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি এবং অপরাধ