23 November, 2020
শিরোনাম

স্থানীয় সরকার নির্বাচন উন্মোক্ত ঘোষনা করা হোক

 14 Oct, 2020   310 বার দেখা হয়েছে

 নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রিন্ট

২০১৪ বর্তমান সরকার তৃতীয় মেয়াদে ক্ষমতায় আসার পর সকল স্থানীয় সরকার নির্বাচন দলীয় ভিত্তিক করার সিদ্ধান্ত নি্য়েছেন,দলীয়করনের সিদ্ধান্তের ফলে সারাদেশে দলীয় নেতা কর্মীদের মধ্যে ব্যাপকভাবে অসন্তুষ্ট দেখা দিয়েছে কারন অনেক জনপ্রিয় মানুষ বা নেতা নেত্রী সারা বছর সাধারন মানুষের পাশে থেকে উন্নয়নমূলক কাজে নিজেদের নিয়োজিত রেখেছেন কিন্তু দলের পক্ষ থেকে নমিনেশন পেতে ব্যর্থ হয় যা দলীয় ত্যাগী নেতা কর্মীদের জন্য অত্যান্ত হতাশাজনক দেখাযাচ্ছে এলাকায় যার কোন গ্রহন যোগ্যতা নেই সেই পেয়ে যাচ্ছে নৌকার টিকিট আর অনেকে আছেন ব্যক্তিত্বের ফুলজুরি এলাকায় ভালকাজের বিরল দৃষ্টান্ত সৃস্টি করে চলেছেন এসব লোকেরা দলীয় মনোনয়ন পাচ্ছেনা অন্যদিকে কেউ চাইলেও প্রার্থী হতে পারতেছেননা সংগতকারনে নৌকার পক্ষে কাজ করতে হবে নয়লে বিভিন্ন পর্যায়ের হয়রানির স্বীকার হতে হয় মান ইজ্জতের ভয়ে অনেকে নিস্কৃয় হতে বাধ্য হয় এভাবেই ত্যাগি সাদা মনের ন্যায়পরায়ন মানুষ গুলো হারিয়ে যাচ্ছে,যা সমাজ ও রাষ্ট্রের জন্য অশনি সংকেত।
 
ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও সদস্য, পৌরসভার মেয়র ও কমিশনার এবং উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যানদের স্থানীয় পর্যায়ের জনগণের সঙ্গে ব্যাপক সংশ্লিষ্টতা থাকে। এ ক্ষেত্রে ভোটাররা সাধারণত বিবেচনায় নেন প্রার্থীকে, দলকে নয়। এ বিবেচনার ভিত্তি জনগণের সঙ্গে প্রার্থীর সম্পর্ক, জনসেবার ঐতিহ্য, পারিবারিক সম্পর্ক প্রভৃতি।
 
দলীয় পরিচয়ও ক্ষেত্রবিশেষে বিবেচনায় থাকে। ইউনিয়ন ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এবং পৌরসভার মেয়রদের কেউ কেউ ভিন্ন দল-মতের হলেও সরকারের উন্নয়ন কাজকর্মের গুরুত্বপূর্ণ হাতিয়ার হিসেবে কাজ করেন। বিগত ২০১৪ সালের পর পর্যন্ত ব্যবস্থাটি কার্যকরভাবেই চলছিল। হঠাৎ আইন পাল্টে ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য ও পৌরসভার কমিশনার ছাড়া স্থানীয় সরকারের সব স্তরের পদে দলীয় প্রতীকে নির্বাচনের ব্যবস্থা করা হয়। কিছুদিন এভাবে চলল। সময় এসেছে এটা মূল্যায়নের।
দলীয় প্রতীকে নির্বাচন না হলে কোনো দলের নির্বাচন বর্জনের সুযোগ ছিল না। অভাব হতো না প্রার্থীর। সে ধরনের অংশগ্রহণমূলক নির্দলীয় নির্বাচনে কেন্দ্রীয় চরিত্রে থাকতেন ভোটাররা। প্রার্থীরা ছুটতেন তাঁদের দ্বারে দ্বারে। এভাবে নির্বাচিত হওয়া জনপ্রতিনিধিরা অধিক দায়বদ্ধ থাকতেন জনগণের কাছে। দুর্ভাগ্যজনকভাবে আমাদের অবস্থান আজ বিপরীতমুখী।
 
এ অবস্থা থেকে ফেরার পদক্ষেপ বিভিন্নভাবে নিতে হবে। সূচনাটা হতে পারে স্থানীয় সরকারব্যবস্থা দিয়েই। এসব প্রতিষ্ঠানের নির্বাচনের ফলাফলে জাতীয় সরকারে কোনো প্রভাব নেই। দলীয় পরিচয়হীন নির্বাচন হলে এর ছিটেফোঁটাও থাকবে না। তাই ইউনিয়ন পরিষদ, উপজেলা পরিষদসহ সব স্থানীয় সরকার নির্বাচন দলীয় প্রতীকের বাইরে করার বিনীতভাবে আহবান জানাই
 
এম আজিজ তালুকদার -সাংগঠনিক সম্পাদক
রিয়াদ আওয়ামী যুবলীগ
সৌদিআরব।

সম্পর্কিত খবর
সব খবর
© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | বাংলা৫২নিউজ.কম
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি এবং অপরাধ