প্রিন্ট করুন

শেখ হাসিনার নেতৃত্ব অনুকরনেই মানবিক যুবলীগের বিকাশ

বাংলাদেশের নেতৃত্ব যখন বিশ্বসভায় প্রশংসা কুড়ায়, তাহলে বুজতে হবে দেশের রাষ্ট্রচিন্তা ও নেতৃত্ব দুটোই সঠিক পথে এগুচ্ছে। কেন্দ্রীয় আলোচনায় রাষ্ট্রের সামাজিক, অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক নেতৃত্বের প্রসঙ্গিকতা তুলেধরা প্রয়োজন। সুশাসনের বাংলাদেশ অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রায় এগিয়ে যাচ্ছে। বিশ্বখ্যাত সফল রাষ্ট্রপ্রধান বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার সুদৃঢ় নেতৃত্ব এখন সারাবিশ্বের বিস্ময়। মহামারি করোনাকালীন বিপর্যয়েও বিশ্ব অর্থনীতিকে চ্যালেঞ্জ করে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জনের হার ৮ শতাংশেরও বেশি আশা করছে অর্থনীতিবিদরা। যেখানে বিশ্বের বড় বড় অর্থনীতির দেশেও প্রবৃদ্ধি অগ্রসর হচ্ছে না। এই অবস্থাতেও মোট দেশজ উৎপাদনে (জিডিপি) প্রতিবেশী দেশ ভারতের মতো বৃহৎ রাষ্ট্রকে পেছনে ফেলে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। আয়তনে ছোট দেশের তালিকাভুক্ত হলেও বাংলাদেশ এখন রাষ্ট্র পরিচালনায় বিশ্বের রোল মডেল।

 দেশপ্রেম এবং রাজনৈতিক প্রজ্ঞা এই দুইয়ের সমন্বয়ে দেশ পরিচালনায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রাষ্ট্র পরিচালনা নীতি ও নেতৃত্ব অনুসরণ করে দেশে যেকোন দূর্যোগ, সংকট মোকাবিলায় দেশবাসীর পাশে থেকে সামগ্রিক সহায়তা প্রদানে মানবিক যুবলীগের বিকাশ ও তৎপরতায় যুবনেতৃত্বে আমূল পরিবর্তনকে সাধুবাদ জানাই। এছাড়া দেশের অবকাঠামো উন্নয়ন অগ্রগতিতে যুবশক্তিকে কাজে লাগানোর মূলেও রয়েছে নেতৃত্বের পরিবর্তীত নির্দেশনা।

 বাংলাদেশের মতো নিম্নমধ্যম আয়ের দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে রূপান্তরিত হওয়ার এই অগ্রযাত্রায় যুবসমাজই হলো কাঙ্খিত ভরসাস্থল। যুবশক্তির অনুপস্থিতিতে জাতীয় উন্নয়ন, অগ্রগতি অসম্ভব। দেশের তরুণ যুব সমাজকে বিভ্রান্তির পথ থেকে ফিরিয়ে এনে আদর্শিক মূল্যবোধসম্পন্ন দেশপ্রেমিক যুবশক্তির দক্ষতা মননশীলতা কাজে লাগিয়ে দেশের অবকাঠামো উন্নয়ন তরান্বিত করাই ছিল বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ প্রতিষ্ঠার মূল উদ্দেশ্য। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই যুবলীগ এই দায়িত্ব সচেতনতার সাথে পালন করে আসছে।
বিশ্বখ্যাত সফল রাষ্ট্রপ্রধান শেখ হাসিনা একবিংশ শতাব্দীর চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় উন্নত-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ বিনির্মানের রূপকল্প বাস্তবায়নে দক্ষ যুবশক্তি গঠনের উপর বিশেষ গুরুত্ব দিয়েছেন। সেই লক্ষেই দু’জন দেশপ্রেমিক মেধাবী নেতৃত্বের হাতে উপমহাদেশের বৃহৎ যুবসংগঠন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ পরিচালনার দায়িত্ব অর্পিত হয়।

 যুবলীগের দায়িত্বে নির্বাচিত চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস্ পরশ একজন শিক্ষাবিদ ও রাজনৈতিক পরিবারের সন্তান। তিনি যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা শেখ ফজলুল হক মনির সুযোগ্য উত্তসূরী। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে বলীয়ন জাতির এই মেধাবী সন্তান দেশসেবায় পিতার অনবদ্য নেতৃত্ব ও চেতনাশক্তির আদলে দক্ষ তরুণ-যুবশক্তি গঠনে দৃঢ়-প্রতিজ্ঞবদ্ধ।

 যুবলীগ প্রতিষ্ঠার উদ্দেশ্য বাস্তবায়নের আরেক কান্ডারী মাঈনুল হোসেন খান নিখিলও একজন মানবিক গুনাবলীসম্পন্ন সজ্জন ব্যক্তিত্ব। রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার নেতৃত্ব অনুকরনে তিনি দেশের উন্নয়নকল্পে দক্ষ ও আধুনিক যুবশক্তি গঠনের কাজে নিয়োজিত রয়েছেন। চৌকশ এই মানবিক যুবনেতা দেশব্যাপী জনকল্যাণমুখী ইতিবাচক সংস্করণে যুবলীগকে ঢেলে সাজানোর অভিপ্রায়কে কার্যকর মনে করছে রাজনীতি সচেতন তরুণ যুবসমাজ।

 

করোনা সঙ্কটকালীন সাম্প্রতি প্রকৃতিক দূর্যোগ ঘূর্ণিঝড় আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্ত অসহায় দরিদ্র জনগোষ্ঠীর স্বাভাবিক জীবন যাপন সুগম রাখতে মানবিক যুবলীগের নিরবচ্ছিন্ন সাহায্য সহায়তায় সংগঠনকে আরো জনসম্পৃক্ত করতে সামর্থ্য হয়েছে এই দুই কান্ডারির নির্দেশনা ও নেতৃত্বে। যার কারনে মানবিক রাজনৈতিক সংগঠন হিসাবে আওয়ামী যুবলীগ দেশবাসীর আস্থায় প্রশংসিত ও সুখ্যাতি অর্জন করায় স্বয়ং জননেত্রী শেখ হাসিনা নিজেও সন্তোষ প্রকাশ করেছেন।

 

ইতোমধ্যেই বাংলাদেশে সমৃদ্ধির সূচক বিশ্ব পরিমন্ডলে প্রশংসিত অবস্থানে উপনীত হয়েছে। নিঃসন্দেহে দেশের যুবজাগরণ এই আমূল পরিবর্তনের গর্বিত অংশিদার। তাছাড়া বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থাও বাংলাদেশের যুব সম্প্রদায়কে কর্মোদ্যমী উন্নয়ণ সম্ভাবনার উৎস হিসেবে চিহ্নিত করে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। এরমানে দাঁড়ায় শেখ ফজলে শামস্ পরশ এবং মাঈনুল হোসেন খান নিখিলের সঠিক নেতৃত্বে পরিচালিত হচ্ছে মানবিক ও আধুনিক যুবরাজনীতি।

 

এই যুব রাজনীতিতে অপসংস্কৃতি পরিহার করে সততা, ন্যায়নিষ্ঠা, দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ যুবরাই জাতীয় অগ্রগতিতে ভূমিকা রাখছে বলে যুব উন্নয়নের প্রগতিশীল তারুণ্যের আধিক্যেতা প্রয়োজন। দেশের আর্থ সামাজিক, অর্থনৈতিক ও প্রযুক্তি উদ্ভাবনী চিন্তা-চেতনাসম্পন্ন যুবনেতৃত্ব গঠনে তরুণ যুবরা অধিকাংশে উৎকৃষ্ট বলে বিশ্লেষকরা অভিমত প্রকাশ করছেন। আগামীদিনে রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার উন্নয়ণ অগ্রযাত্রায় মেধাবী তরুণ যুবরা রাজনৈতিক সচেতনতাসহ মানবিক ও জনকল্যাণমূখী কর্মকান্ডে নিজেদের সম্পৃক্ত রেখে দেশ গড়ার কাজে আত্মনিয়োগ করবে বলেই বিশ্বাস।

 

লেখকঃ সৈয়দ মিজানুর রহমান
সাবেক সভাপতি, ঢাকা মহানগর ছাত্রলীগ (উত্তর)।


সম্পাদক ও প্রকাশক : প্রভাষক কাজী আওলাদ হোসেন

১৪৬, (৪র্থ তলা), রোড-০২, ব্লক-এ, সেকশন-১২, পল্লবী, মিরপুর, ঢাকা-১২১৬

ফোন: +৮৮০২ ৫৮১৫৪৭৭৫ | নিউজ রুম: +৮৮০১৭২৩-১২৭৬২৫ | ই-মেইল: [email protected]