রাাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছেন, ইউক্রেনের যুদ্ধে তিনি অপেশাদার বা সংরক্ষিত যোদ্ধাদের জড়াবেন না। আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষ্যে সোমবার (৭ মার্চ) দেওয়া একটি ভিডিও বার্তায় প্রেসিডেন্ট পুতিন একথা বলেন।

ভিডিও বার্তায় রুশ প্রেসিডেন্ট বলেছেন, ‘আমি জোর দিয়ে বলছি, যারা সামরিক বাহিনীতে নিয়োগপ্রাপ্ত নন, তাদের এই যুদ্ধে ডাকা হয়নি বা ডাকা হবেও না। এখানে শুধু পেশাদার সামরিক সদস্যরাই কাজ করছেন।’

অন্যদিকে ইউক্রেনের পক্ষে যুদ্ধ করতে বিপুল সংখ্যায় বেসামরিক মানুষ তালিকাভুক্ত হচ্ছে। ইউক্রেনের সাধারণ মানুষসহ বিদেশি নাগরিকদেরও এই লড়াইয়ে অংশ নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে দেশটি।

এদিকে ইউক্রেন যুদ্ধে যে সৈনিক এবং কর্মকর্তারা অংশ নিচ্ছেন, তাদের মা, স্ত্রী, বোন, স্ত্রী এবং বান্ধবীদের প্রতি ভিডিও বার্তায় সহমর্মিতা জানান ভ্লাদিমির পুতিন। তিনি বলেছেন, ‘প্রিয়জনদের জন্য আপনারা কতটা উদ্বেগে আছেন, সেটি আমি অনুভব করতে পারছি।’

এছাড়া নারীদের ‘আনুগত্য, নির্ভরযোগ্যতা এবং সহায়তার’ বিষয়টিও প্রেসিডেন্ট পুতিনের বক্তব্যজুড়ে উঠে এসেছে। তিনি বলেছেন, ‘আমাদের প্রিয় নারীরা, আপনাদের সংবেদনশীলতা, সহানুভূতি এবং অতিমানবিক উদারতার মাধ্যমে বিশ্বকে আরও ভালো এবং দয়াময় করে তুলেছেন, সেজন্য ধন্যবাদ। আকর্ষণীয় কোমলতা এবং আশ্চর্য অন্তর্নিহিত শক্তির একটি মিশেল আপনারা তৈরি করেছেন।’

অবশ্য গত ২৪ ফেব্রুয়ারি সংবাদমাধ্যম দ্য ইনসাইডারে প্রকাশিত খবরে বলা হয়েছে, ইউক্রেনে হামলার আগে রাশিয়ায় বহু মানুষকে সামরিক বাহিনীতে নাম লেখাতে বাধ্য করা হয়েছে। তবে দ্য ইনসাইডারের এই দাবি নিরপেক্ষভাবে এই তথ্য যাচাই করতে পারেনি বিবিসি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x