হুমায়ুন কবির, কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধিঃ
বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহচর, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ও আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য শহীদ গোলাম কিবরিয়ার জ্যৈষ্ঠ পুত্র কুষ্টিয়া জেলার মিয়া ভাই নামে খ্যাত ও কুষ্টিয়া-৪ আসনের দুই বারের সাবেক সাংসদ ও কুমারখালী উপজেলা পরিষদের একবারের চেয়ারম্যান মরহুম আবুল হোসেন তরুণের ২৫ তম মৃত্যুবার্ষিকী।
বুধবার (৯ মার্চ) এ উপলক্ষে আবুল হোসেন তরুণ স্মৃতি সংসদ ও পাঠাগারের উদ্যোগে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে আলোচনা সভা ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।
মৃত্যুবার্ষিকীতে কুমারখালী ও খোকসা উপজেলা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনসহ বিভিন্ন সংগঠন আলোচনা সভা, মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।
আবুল হোসেন তরুণের ছেলে গোলাম মোরশেদ পিটার জানিয়েছেন, মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে দলীয় অনুষ্ঠানাদি ছাড়াও পারিবারিকভাবে দোয়া ও মিলাদের আয়োজন করা হয়েছে। এছাড়াও বিভিন্ন এতিমখানায় মিলাদ, দোয়া ও খাবারের ব্যবস্থা করা হয়েছে।
জানা গেছে, তিনি ১৯৭৫ এবং ১৯৮৬ সালে দু’বার বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের সদস্য এবং ১৯৮৯ সালে কুমারখালী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। তার মৃত্যুর পর তারই সহধর্মিণী বেগম সুলতানা তরুণ ২০০৮ সালে বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের ৭৮, কুষ্টিয়া-৪ (কুমারখালী-খোকসা) আসনের সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।
আরও জানা গেছে, সাধারণ জীবনযাপন করা সাদা মনের এই জননেতা তার আচার-আচরণ আর ভালবাসা দিয়ে আজও বেঁচে আছেন সাধারণ মানুষের মণিকোঠায়। কুষ্টিয়া অঞ্চলের এই বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ আবুল হোসেন তরুণ ১৯৯৭ সালের ৯ মার্চ হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মৃত্যুবরণ করেন।
আবুল হোসেন তরুণ মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক সাবেক সংসদ সদস্য, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য এবং বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহচর শহীদ গোলাম কিবরিয়ার জ্যেষ্ঠ পুত্র। জীবদ্দশায় তিনি বহু সামাজিক ও সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। আবুল হোসেন তরুণ এলাকার অত্যন্ত জনপ্রিয় নেতা ছিলেন। কুমারখালীতে মরহুমের স্মৃতি রক্ষার্থে তার নামে রাস্তাঘাট ও ভবন রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x