ক্রিকেটার নাসিরের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ আইসিসির

খেলাধুলা

বাংলাদেশের জাতীয় দলের সাবেক ক্রিকেটার নাসির হোসেন আর বিতর্ক যেন একসূত্রে গাঁথা। বিভিন্ন সময়ে নানা কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে আলোচনার জন্ম দিয়েছেন। এবার তিনি নিজেকেই ছাড়িয়ে গেলেন। নাসির হোসেনের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ এনেছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। ২০২১ আবুধাবি টি-টেনে ম্যাচে দুর্নীতিতে জড়ানোর অভিযোগ আনা হয়েছে আট ব্যক্তির বিরুদ্ধে। এর মধ্যে অন্যতম বাংলাদেশি এই অলরাউন্ডার।

মঙ্গলবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানায় আইসিসি। আমিরাত ক্রিকেট বোর্ডের (ইসিবি) পক্ষ থেকে এ অভিযোগ গঠন করেছে তারা। নাসিরের বিরুদ্ধে আমিরাত ক্রিকেট বোর্ডের দুর্নীতিবিরোধী কোডের তিনটি ধারা ভঙ্গের অভিযোগ আনা হয়েছে।

নাসিরের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে, দুর্নীতিবিরোধী ২.৪.৩ ধারায় তদন্তের দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তাকে (ডিএসিও) ৭৫০ ডলারের বেশি অর্থ মূল্যের উপহার নেওয়ার বিষয়টি জানাতে ব্যর্থ হয়েছেন।

২.৪.৪ ধারায় তদন্তের দায়িত্বে থাকা ব্যক্তিকে দুর্নীতি বা ম্যাচ ফিক্সিংয়ের কোনো প্রস্তাব তিনি পেয়েছিলেন কি না, তাকে কোনোভাবে প্ররোচিত করা হয়েছিল কি না তা পরিষ্কার করে বিস্তারিত জানাতে ব্যর্থ হয়েছেন।

২.৪.৬ ধারায় তার বিরুদ্ধে অভিযোগ এনেছে যে, তিনি সম্ভাব্য দুর্নীতিতে যুক্ত ছিলেন এমন তদন্তের বিষয়ে দুর্নীতির তদন্তে থাকা কর্মকর্তাকে বিষয়টি জানাতে ব্যর্থ হয়েছেন বা তদন্তে সহযোগিতা করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন।

যে আট জনের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ এসেছে তার মধ্যে ক্রিকেটার তিন জন। একজন নাসির হোসেন অন্য দু’জন হলেন আরব আমিরাতের ক্রিকেটার রিজওয়ান জাভেদ ও সালিয়া সামান। বাকিদের মধ্যে আছেন কৃষ্ণা কুমার চৌধুরী। যিনি একটি ফ্র্যাঞ্চাইজি মালিকানার অংশীদার। পরাগ সংঘভিও একটি ফ্র্যাঞ্চাইজির মালিকানার অংশীদার। আশহারর জায়েদি ব্যাটিং কোচ। সানি ধিলন সহকারী কোচ ও শাদাব আহমেদ টিম ম্যানেজার।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালে সর্বশেষ জাতীয় দলের জার্সিতে খেলেছিলেন নাসির হোসেন। এরপর আর দেশের জার্সিতে দেখা যায়নি তাকে। যদিও বিশ্বজুড়ে ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেটে বিচরণ রয়েছে তার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *