স্টাফ রিপোর্টার:
টাঙ্গাইলের ঘাটাইলে জোরপূর্বক ভাবে পারিবারিক কবরস্থানের সীমানা প্রাচীর ভেঙে ফেলার অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার তিন’ই মার্চ সকালে উপজেলার দেউলাবাড়ি ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের অন্তর্ভুক্ত পশ্চিম পাকুটিয়া (খালপাড়) গ্রামে মোঃ নূরুল ইসলামের বাড়িতে এঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী নূরুল ইসলাম বলেন, আমার পৈত্রিক সম্পত্তিতে বাড়ির ডানপাশে পারিবারিক কবরস্থানে মা’কে সমাহিত করি। কবরস্থানের পবিত্রতা রক্ষাত্বে চারপাশে সীমানা প্রাচীর তৈরি করা হয়। গত ৩ই মার্চ সন্ত্রাসী ভূমি দস্যু মোঃ আলীম উদ্দিন আকন্দ (৬৫) এর নেতৃত্বে
তার সাথে থাকা কতিপয় সন্ত্রাসী শ্রেণির সাত থেকে আট জন ব্যক্তিদের নিয়ে হঠাৎ কাউকে না জানিয়ে কবরস্থানের সীমানা প্রাচীরে ভেঙে ফেলে। ভাঙচুরের ঘটনায় আমিসহ আমার পরিবার আর্থিক ও মানসিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হই এবং পরবর্তীতে আইনের আশ্রয় গ্রহণ করি।

বুধবার ৯মার্চ দুপুরে সরেজমিনে পরিদর্শন করতে গেলে অভিযুক্ত মোঃ আলীম উদ্দিন আকন্দ জানান, স্থানীয়দের যাতায়াত ও চলাচলের সুবিধার্থে কিছু লোক নিয়ে কবরস্থানের সীমানা প্রাচীর ভেঙে ফেলি কিন্তু কোন আর্থিক বা অন্য কোন ধরনের ক্ষতি করি নাই।

স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শী আনোয়ার ও শাহআলম বলেন, নূরুল ইসলাম দের পারিবারিক কবরস্থানের তার মা’কে সমাহিত করা হয়েছে। কিন্তু আকন্দ পরিবারের লোকজন কাউকে না জানিয়ে অতর্কিত ভাবে সীমানা প্রাচীর ভেঙে ফেলে। তবে হঠাৎ করে ভেঙে ফেলা উচিত হয়নি।

এঘটনায় সাবেক দেউলাবাড়ি ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ সোহরাব হোসেন জানান, চেয়ারম্যান থাকাকালীন অবস্থায় স্থানীয়দের সাথে পরামর্শ করে রাস্তা বিষয়ে সিদ্ধান্ত দিতে গেলে ব্যর্থ হই। কিন্তু কবরস্থানের সীমানা প্রাচীর ভেঙে ফেলার বিষয়ে কোনপ্রকার নির্দেশ দেইনি।

বর্তমান দেউলাবাড়ি ইউপি চেয়ারম্যান সুজাত আলী খান বলেন, কবরস্থানের সীমানা প্রাচীর ভেঙে ফেলার বিষয়ে লিখিত কোন অভিযোগ পাইনি তবে মৌখিক ভাবে এ-ঘটনা শুনেছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x