Sunday , 3 March 2024
শিরোনাম

চট্টগ্রামকে গুড়িয়ে শীর্ষস্থান মজবুত করল রংপুর

ঢাকার দ্বিতীয় পর্বের শেষ দিনে আজ প্রথম ম্যাচে বড় জয় পেয়েছে রংপুর রাইডার্স। চলতি বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) প্রথমবার দলীয় সংগ্রহ দুই শ ছাড়ানো রংপুর ২০ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে স্কোর বোর্ডে তোলে ২১১ রান। লক্ষ্য তাড়ায় ৬ উইকেটে ১৫৮ রানে থামে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। ৫৩ রানে পাওয়া জয়ে ৮ ম্যাচে ১২ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে রংপুর।

রংপুরের জয়ে ব্যাটে-বলে অবদান রাখেন সাকিব আল হাসান। টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারে দ্বিতীয় বাংলাদেশি হিসেবে সাত হাজার রানের মাইলফলক ছোঁয়ার দিনে ১৬ বলে ২৭ রান করেন তিনি। পরে বল হাতে ৪ ওভারে ২৪ রান দিয়ে ২ উইকেট নেন এই বাঁহাতি স্পিনার। সাকিব ছাড়াও রংপুরের জার্সিতে আলো ছড়িয়েছেন চলতি বিপিএলে প্রথম ম্যাচ খেলতে নামা জিমি নিশাম। ২৬ বলে ৫১ রানের ঝোড়ো ইনিংসের পর বোলিয়েও ২ উইকেট নিয়েছেন এই নিউজিল্যান্ড অলরাউন্ডার।

মিরপুরে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে রংপুরকে ভালো শুরু এনে দেন রনি তালুকদার ও দক্ষিণ আফ্রিকার রেজা হেনড্রিকস। বিনা উইকেটে পাওয়ার প্লেতে ৫২ রান তুলে এই জুটি থামে ৬১ রানে। ৪১ বলের জুটি ভাঙে ১৭ বলে ২৪ করা রনি আউট হলে।

দ্বিতীয় উইকেটে রেজা-সাকিবের জুটি থেকে আসে ৬০ রান। ইনিংসের ১৩তম ওভারে সাকিবকে আউট করার পর রেজাকেও ফেরান সালাউদ্দিন শাকিল। অর্ধশতক করা রেজা ৪১ বলে করেন ৫৮ রান। ১২২ রানে ৩ উইকেট হারানো রংপুর এরপর আর কোনো উইকেট হারায়নি। অধিনায়ক নুরুল হাসান ও নিশাম অবিচ্ছিন্ন ৮৯ রানের জুটিতে চট্টগ্রামের বোলারদের স্বস্তিতে থাকতে দেননি।

৫টি চার ও ৩টি ছক্কায় নিশাম ২৬ বলে ৫১ ও নুরুল ২১ বলে ৩১ রানে অপরাজিত থাকেন। রানের পাহাড় টপকাতে নেমে সুবিধা করতে পারেনি চট্টগ্রাম। সাকিবের সঙ্গে ইমরান তাহিরের ঘূর্ণিতে ১০.৩ ওভারে ৫০ রানে ৩ উইকেট হারায় দলটি। চতুর্থ উইকেটে ৫৮ রানের জুটি গড়ে বিপর্যয় এড়ান সৈকত আলী ও কার্টিস ক্যাম্ফার। কার্টিস ২১ বলে ২৪ রানে আউট হলে ভাঙে এই জুটি। খানিক পর অর্ধশতক করা (৪৫ বলে ৬২) সৈকতও আউট হন। শেষ দিক শুভাগত (১৩ বলে ৩১* রান) ঝোড়ো এক ইনিংস খেললেও তা হারের ব্যবধান কমানো ছাড়া কাজে আসেনি।

Check Also

রংপুরকে ৬ উইকেটে হারিয়ে ফাইনালে বরিশাল

দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচ। যে দল হারবে, তারা বাদ। জয়ী দল চলে যাবে ফাইনালে। এমন গুরুত্বপূর্ণ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x