২০১৬ সালে চুরি হওয়া পাঁচ বিলিয়ন মার্কিন ডলার মূল্যের বিটকয়েন উদ্ধার করেছে যুক্তরাষ্ট্রের ডিপার্টমেন্ট অব জাস্টিস। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে এক দম্পতিকে আটক করেছে তদন্তকারী দল।

বিবিসি এক প্রতিবেদনে জানায়, ২০১৬ সালের শুরুতে বিটফিনিক্সের মাধ্যমে প্রায় ১ লাখ ২০ হাজার বিটকয়েন পাচারের চেষ্টা করেছিল এক ব্যক্তি। তখন তার আর্থিক মূল্য ছিল ৭১ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। বর্তমানে তার আর্থিক মূল্য বেড়ে হয়েছে ৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

জাস্টিস বিভাগের কর্মকর্তারা জানান, আটক ব্যক্তি দুই হাজারের অধিক অবৈধ ট্রানজেকশন তৈরি করে। তারপর তার স্ত্রী ইলিয়ার নিকট ডিজিটাল ওয়ালেটের মাধ্যমে বিটকয়েন পাঠায়।

দীর্ঘ ৫ বছর ধরে চলা এ তদন্তে ওয়াশিংটন ডিসি, নিউ ইয়র্ক, শিকাগো, জার্মানি যৌথভাবে অংশগ্রহণ করে।

এক বিবৃতিতে বিটফিনিক্স জানায়, বিটকয়েন উদ্ধারের তদন্তে তারা সহযোগিতা করেছিল। চুরি হওয়া বিটকয়েন উদ্ধারে তারা ‘সন্তুষ্ট’।

দম্পতির বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হলে, তাদের ২৫ বছর কারাভোগ হতে পারে।

এর আগে গত বছর ২ দশমিক ৩ মিলিয়ন মূল্যের ক্রিপ্টোকারেন্সি পাচারের চেষ্টা করা হয়েছিল। পরে ওই অর্থ উদ্ধার করা হয়েছিল।

বর্তমানে ক্রিপ্টোকারেন্সি পাচারের হার বৃদ্ধি পাচ্ছে। ২০২১ সালে ৮ দশমিক ৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার মূল্যের ক্রিপ্টোকারেন্সি পাচার করা হয়। যা ২০২০ সালের তুলনায় ৩০ ভাগ বেশি ছিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x