সৌদি আরবের জেদ্দায় বাংলাদেশি এক তরুণকে পিটিয়ে খুন করেছে ইয়েমেনী একদল তরুণ। এ ঘটনায় দু’জনকে গ্রেফতার করেছে জেদ্দা পুলিশ।

একসঙ্গে ৭-৮ জন খাবার খেতে বসার পর ঝগড়ার জেরে হত্যাকাণ্ড ঘটে বলে খুন হওয়া তরুণের সহকর্মীরা জানিয়েছেন।

নিহতের নাম তুহিন আহমেদ (২২)। তিনি হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার রমজানপুর গ্রামের মৃত তারেক আহমেদের ছেলে। তুহিন ও তার মা জেদ্দায় থেকে সেখানে কাজ করতেন। শনিবার (৫ মার্চ) রাত পৌনে ১০টার দিকে  হত্যাকাণ্ডের খবরটি নিশ্চিত করেছেন ইনাতগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্য মো. গোলাম হায়দার।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ও নিহতের সহকর্মীদের বরাত দিয়ে ইউপি সদস্য গোলাম হায়দার জানান, তুহিন জেদ্দায় একটি সুপার শপে কাজ করতেন। শুক্রবার (৪ মার্চ) রাতে একটি মেস বাসায় ইয়েমেনী ৭-৮ জন যুবকের সঙ্গে খেতে বসেন তিনি (তুহিন)। এ সময় কথা কাটাকাটির জেরে তুহিনকে পিটিয়ে আহত করে যুবকরা। আহতাবস্থায় তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। এরপর জেদ্দা পুলিশ হত্যাকাণ্ডে জড়িত দুই যুবককে গ্রেফতার করেছে।

ইউপি সদস্য মো. গোলাম হায়দার আরও জানান, তুহিনের মা প্রায় আট বছর আগে ও তুহিন পাঁচ বছর আগে সৌদি আরবের জেদ্দায় গিয়েছিলেন। দু’জন আলাদা বাসায় থেকে সেখানে উপার্জন করতেন।সূত্র -বাংলানিউজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x