নেদারল্যান্ডসের মর্যাদাপূর্ণ সেপ্টিমিয়াস অ্যাওয়ার্ডের ‘বেস্ট অ্যানিমেশন’ ক্যাটাগরিতে মনোনয়ন পেয়েছে ‘মুজিব আমার পিতা’। ৬-৭ জুন রয়েল থিয়েটার ইন্সটিটিউট আমস্টারডামে বসবে এবারের আসর।

৭ তারিখ হবে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান। তার আগে থাকবে রেড কার্পেট ও প্রেস মিট।

 

যা সম্প্রচার করা হবে ডাচ টিভি চ্যানেলে।
২ মার্চ আয়োজকরা ছবিটিতে মনোনীত করার খবর জানায়। উত্সবে যোগ দেয়ার কথা রয়েছে ছবির পৃষ্ঠপোষক আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, গবেষণা সমন্বয়ক তন্ময় আহমেদ এবং পরিচালক সোহেল মোহাম্মদ রানার।

 

পরিচালক রানা বলেন, “এটা বাংলাদেশের জন্য একটা দারুণ সুখবর। আমরা যখন ‘মুজিব আমার পিতা’র সেন্সর ছাড়পত্র পাই, জানতে পারি এই প্রথম দেশের কোনো পূর্ণদৈর্ঘ্য অ্যানিমেশন ছবি সেন্সর পেল। প্রথম ছবিটিই প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় অ্যানিমেশন উত্সবগুলোতে। এটা আমার জন্য যেমন গর্বের, তেমনি দেশের চলচ্চিত্র অঙ্গনের জন্যও। আশা করি, আমাদের এই অর্জনগুলো দেশের অ্যানিমেশন সেক্টরকে আরো এগিয়ে নিয়ে যাবে। সামনে প্রোলেন্সার স্টুডিওর মতো আরো অনেক স্টুডিও অ্যানিমেটেড চলচ্চিত্র নির্মাণে এগিয়ে আসবে। ”

জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, “মুজিববর্ষকে সামনে রেখে আমরা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ওপর অ্যানিমেশন চলচ্চিত্র নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছিলাম। উদ্দেশ্য ছিল, নতুন প্রজন্মের কাছে তাদের প্রিয় মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর জীবন ও আদর্শকে তুলে ধরা। পাশাপাশি আমাদের ভাবনায় ছিল এর মাধ্যমে দেশের অ্যানিমেশন শিল্পকে উত্সাহিত করা। আমি চাই বাংলাদেশকে বৈশ্বিক অ্যানিমেশন বাজারে একটি নতুন হাব হিসেবে উপস্থাপন করতে। এর মাধ্যমে কেবল কর্মসংস্থানই নয়, বিপুল বৈদেশিক মুদ্রা আয় করাও সম্ভব। ‘মুজিব আমার পিতা’র এই আন্তর্জাতিক সাফল্য আমাদের সে লক্ষ্য অর্জনে ভীষণ সহায়ক হবে। বিশ্ববাজারে বাংলাদেশের অ্যানিমেটরদের একটা আলাদা পরিচিতি তৈরি হবে। ”

সেপ্টিমিয়াস অ্যাওয়ার্ডে মূলত স্বাধীন ধারার চলচ্চিত্রকে পৃষ্ঠপোষকতা করা হয়। তুলে আনা হয় বিশ্বের বিভিন্ন দেশের তরুণ প্রতিভাবান রণ নির্মাতাদের। এবারের আসরের প্রথম দিন হবে প্যানেল ডিসকাশন। অংশ নেবেন অস্কারজয়ী নির্মাতা ও চিত্রনাট্যকার কেভিন উইলমট, নির্মাতা জুকো নোদাদা, অভিনেত্রী নাতাশা তাহেন ও এনকোবাইল খোমালে, নেদারল্যান্ডস ফিল্ম ফান্ডের পরিচালক বেরো বেয়ার এবং ডাচ প্রযোজক এলস ভেন্ডেভর্স্ট, জেলানি আইজ্যাকস, রেনে গুসেনস, অ্যানামিক ভ্যান গর্প ও রে ব্লিংকার।

একই দিনে আরো একটি সুখবর এসেছে কুয়েটু ইন্টারন্যাশনাল অ্যানিমেশন ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল (কিয়েফ) থেকেও। নির্বাচিত হয়েছে মূল বিভাগে। তাঞ্জানিয়ার এই উত্সবে দেখানো হয় সারা বিশ্ব থেকে নির্বাচিত সেরা অ্যানিমেটেড ছবি। এবারের আয়োজন হবে ৮-১০ এপ্রিল।

এর আগে ‘মুজিব আমার পিতা’ ‘দ্য এন্ড অব দ্য ইয়ার ফিল্ম ইভেন্ট’ খ্যাত ক্যাপ্রি হলিউড উত্সবে ৩১ ডিসেম্বর রাতে প্রদর্শিত হয়।

‘মুজিব আমার পিতা’র কাহিনি রচনা করা হয়েছে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রচনা ‘শেখ মুজিব আমার পিতা’ অবলম্বনে। মুজিব বর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীকে সামনে রেখে সহায়তা করেছে আইসিটি ডিভিশন। নির্মাণ করেছে টুডি অ্যানিমেশন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান প্রোলেন্সার স্টুডিও।সূত্র -কালের কণ্ঠ

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x