মোটর সাইকেল বা বাইক, যুগ যুগ ধরে তারুণ্যে পথচলায় চাহিদার শীর্ষে অবস্থান করছে। সেটা মাথায় রেখেই গতি আর স্টাইলের যুগল বৈচিত্র্যে বিশ্ববাজারে আসছে নানা ব্র্যান্ডের দুর্দান্ত সব এক্সক্লুসিভ সুপারবাইক, একই সঙ্গে এগুলো এক্সপেনসিভ।

বিশ্বখ্যাত ব্রান্ডের এক্সক্লুসিভ সুপার বাইকের দাম শুনলে হয়তো আপনি চমকে উঠবেন। আসুন, বিশ্ববাজারে সর্বশেষ আসা শীর্ষ ৫ এক্সক্লুসিভ ও এক্সপেনসিভ বাইকে চোখ রাখি।

ফিলাইন ওয়ান [Feline One]

বিশ্বের এক্সক্লুসিভে সুপার বাইকের তালিকায় জায়গা করে নেয়া মোটরসাইকেলগুলোর মধ্যে অন্যতম ফিলাইন ওয়ান। সুইজারল্যান্ডের মোটরবাইক কোম্পানি ফিলাইন বাইকটি বাজারে এনেছে। এতে ব্যবহার করা হয়েছে ব্যবহার করা হয়েছে ৮০১ সিসির ৩ সিলিন্ডার ইঞ্জিন এবং এতে ৬টি গিয়ারবক্স আছে। ফিলাইন ওয়ান মডেলটি কার্বন, টাইটানিয়াম, উন্নত অ্যালুমিনিয়াম এবং চামড়ার তৈরি। এতে বিলাসবহুল সামগ্রী ব্যবহারে কোন কমতি রাখা হয়নি। সবচেয়ে অবাক করার মতো একটি বিষয় হচ্ছে এর ওজন মাত্র ১৫৫ কেজি। কোম্পানিটি দীর্ঘ ৪ বছর ধরে প্রযুক্তিগত গবেষণা চালানোর পর এই বাইকটি উৎপাদন করেতে সক্ষম হয়।বিখ্যাত ফরাসি ডিজাইনার ইয়াকুবা অত্যাধুনিক এই বাইকের ডিজাইন করেছেন। বিশ্ববাজারে ফিলাইন ওয়ান বাইকটির মূল্য ২৮ লাখ মার্কিন ডলার, বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ২ কোটি ২০ লাখ টাকা।

হার্লি ডেভিডসন সফটটেল স্লিম এস [Harley Davidson ‍softtel slim S]

বিখ্যাত মার্কিন মোটরসাইকেল নির্মাতা প্রতিষ্ঠান হার্লি-ডেভিডসেন এক্সক্লুিসভ বাইক ‘সফটটেল স্লিম এস’।সুইজারল্যান্ডের বিখ্যাত গয়না ও ঘড়ি প্রস্তুতকারক সংস্থা ‘বুশারার’ এবং মোটরবাইক প্রস্তুতকারক সংস্থা ‘বান্ডানার বাইক’ যৌথভাবে এটি তৈরি করেছে। এই দুই সংস্থার আটজন বিশেষজ্ঞ ২ হাজার ৫০০ ঘণ্টা ধরে গবেষণা, পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে বাইকটির নকশা তৈরি করেছেন। এতে ৩৬০টি হীরা বসানো আছে। বাইকের স্ক্রুগুলো সবই সোনার। মোটরবাইকটিতে ছয়টি স্তরে রঙের প্রলেপ দেওয়া হয়েছে। ১ হাজার ৮৮৮ সিসির এ বাইকটির গতি প্রতি ঘণ্টায় ১৮৮ কিলোমিটারের বেশি। ৩৮৮ কেজি ওজনের এ বাইকে বসামাত্রই আঙুলের স্ক্যানিং শুরু করে দেবে মোটরসাইকেলটি। বিশ্ববাজারে এটির দাম রাখা হয়েছে ১ দশমিক ৭৯ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। বাংলাদেশি টাকায় এর দাম ১৫ কোটি ১৬ লাখ টাকা।

ইয়ামাহা বিএমএস চপার [Yamaha BMS Chopper]

বিশ্বের বিলাসবহুল সুপার বাইকের তালিকায় জনপ্রিয় ব্র্যান্ড ইয়ামাহার থাকবে না, সেটা হতে পারে না।ইয়ামাহা বিএমএস চপারকে যতটা না বাইক বলা চলে, তার চাইতে বেশি একটি মেকানিক্যাল আর্ট বা যান্ত্রিক শিল্পকর্ম বলা যায়।।এই গতিদানব কোনো রাস্তায় সাধারণ চলাচলের উপযোগী নয়, বরং এটি একটি নিজস্ব সংগ্রহে রাখার মতো বস্তু যা সত্যিকারের অ্যাস্থেটিসিজম প্রকাশ করবে। এর মধ্যে আছে ১৭০০ সিসির ডাবল ইঞ্জিন, যা প্রায় পুরোটাই ২৪ ক্যারেট সোনায় মোড়ানো এবং সিটের উপর আছে লাল ভেলভেটের আস্তর। বিশ্ববাজারে বাইকটির দাম প্রায় ৩০,০০,০০০ ডলার, বাংলাদেশি টাকায় ২৫ কোটি ৭৭ লক্ষ টাকা।

নাইন্টিন ফর্টি নাইন ই নাইন জিরো এজেএস পোকার্পাইন [1949 E90 AJS Porcupine]

বিশ্বের অন্যতম এক্সক্লুসিভ মোটর বাইক হলো নাইন্টিন ফর্টি নাইন ই নাইন জিরো এজেএস পোর্কোপাইন। বিখ্যাত ব্রিটিশ কোম্পানি বোনহ্যাম এই অভিজাত মোটর সাইকেলের নির্মাতা। তাদের দাবি ১৯৫৪ তাদের উৎপাদিত বিশ্বের প্রথম স্পোর্টস বাইক এজেএস পোকর্পাইনকেই ধাপে ধাপে আধুনিকায়ন করে এই পর্যায়ে নিয়ে আসা হয়েছে। ৪৯৮ সিসির বাইকটি ডুয়েল ইঞ্জিনটি ম্যাগনেশিয়াম সমৃদ্ধ ইস্পাতে তৈরি।এটি ঘণ্টায় ৩০০ মাইল গতিতে ছুটতে সক্ষম। বোনহ্যাম এখন পর্যন্ত বিশ্বে এই ব্রান্ডের মাত্র চারটি মোটরবাইক বাজারে ছেড়েছে। পঞ্চম বাইকটি এখনো তৈরি করা হয়নি। এর বাজার মূল্য ৭০,০০,০০০ মার্কিন ডলার, বাংলাদেশি মূদ্রায় ৬০ কোটি টাকা।

নিমান মার্কাস লিমিটেড এডিশন ফাইটার [Neiman Marcus Limited Edition Fighter]

বিশ্বের সবচেয়ে এক্সক্লুসিভ এবং এক্সপেনসিভ সুপার বাইক হলো নিমান মার্কাস লিমিটেড এডিশন ফাইটার।এর নির্মাতা প্রতিষ্ঠান হলো নিমান মার্কাস লিমিটেড, এটি লাক্সারি ডিপার্টমেন্ট স্টোরগুলোর একটি আমেরিকান চেইন। এতে রয়েছে ১ হাজার ৮৮৮ সিসির একটি শক্তিশালী ইঞ্জিন।এটি রিয়ার হুইলে ২২৮পিএস শক্তি দিতে সক্ষম। তবে সর্বোচ্চ গতিকে সীমিত রাখা হয়েছে ৩০০ কিলোমিটারে। বাইকের বডি তৈরি করা হয়েছে অ্যালুমিনিয়াম ও টাইটানিয়াম মিশ্রিত কার্বন ফাইবার ফ্রেমে। বিশ্ববাজারে নোমান মার্কাস ফাইটার বাইকটির দাম ১১ মিলিয়ন ইউএস ডলার, বাংলাদেশের মুদ্রায় যা ৯৩ কোটি ২০ লাখ টাকা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x