বলিউড অভিনেত্রী সানি লিওনের বাংলাদেশ সফরের অনুমতির বাতিলের কারণ জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। তিনি বলেছেন, পরিচয় গোপন করে একটি চলচ্চিত্রের কাজে বাংলাদেশে আসতে চেয়েছিলেন এই বলিউড নায়িকা। তবে তা দৃষ্টিগোচর হওয়ায় তার ‘ওয়ার্ক পারমিট’ (কাজের অনুমতি) বাতিল করেছে তথ্য মন্ত্রণালয়।

আজ শুক্রবার সন্ধ্যায় আগারগাঁওয়ের মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরে ‘১০ম লিবারেশন ডকফেস্ট বাংলাদেশে’র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা জানান।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ভারতের ১০ জন শিল্পীকে বাংলাদেশে আসার জন্য অনুমতি দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু তাদের একজন যে ‘সানি লিওন’ নামেও যে তিনি পরিচিত তা গোপন করা হয়। ভিন্ন নামে, মার্কিন নাগরিক দেখিয়ে তার অনুমতি নেওয়া হয়েছিল। তিনি যে পরিচয় গোপন করেছেন সেটা অপরাধ।

বিষয়টি জানার পর তার বাংলাদেশে আসার অনুমতি বাতিল করা হয়েছে উল্লেখ করে হাছান মাহমুদ বলেন, যারা গোপন করেছে তারা অন্যায় করেছে। যারা তাকে আনতে চেয়েছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা আমরা ভাবছি।

উল্লেখ্য, সানি লিওনের আসল নাম কারেনজিত্ কৌর ভোহরা। তিনি কানাডা ও যুক্তরাষ্ট্রের দ্বৈত নাগরিক।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকারের নেওয়া বিভিন্ন পদক্ষেপের কারণে চলচ্চিত্র শিল্পের খারাপ দিন কেটে গেছে।

চলচ্চিত্র অনুদাননির্ভর শিল্প নয় মন্তব্য করেন তথ্যমন্ত্রী বলেন, সিনেমায় অনুদানের প্রয়োজন থাকলেও শুধু অনুদান দিয়ে সিনেমা শিল্পকে বাঁচিয়ে রাখা যাবে না। অনুদান দেওয়া হয় ভালো সিনেমা নির্মাণে জন্য। সিনেমা শিল্পের বিকাশে যে পদক্ষেপ নেওয়া দরকার তা এই সরকার নিচ্ছে।

এবারের আয়োজনে বিশ্বের ১৯৬টি দেশ থেকে জমা হয়েছিল একুশ শতাধিক ছবি, জমা করা ছবির মধ্য থেকে ৪০টি দেশের ১৪০টি ছবি প্রদর্শিত হবে। অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে সংসদ সদস্য আসাদুজ্জামান নূর উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x