সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি নাইমা হায়দারকে সুপ্রিম কোর্ট লিগ্যাল এইড (আইনগত সহায়তা) কমিটির চেয়ারম্যান করা হয়েছে। গত ৫ জানুয়ারি প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী তাঁকে নিয়োগ দেন বলে আজ বৃহস্পতিবার সাংবাদিকদের জানিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের রেজিস্ট্রার মোহাম্মদ সাইফুর রহমান।

চেয়ারম্যান নিয়োগ সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ‘বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট লিগ্যাল এইড কমিটির চেয়ারম্যান বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন আপিল বিভাগে বিচারক হিসেবে নিয়োগ লাভ করায় কমিটির চেয়ারম্যান-এর শূন্যপদে প্রধান বিচারপতি সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি নাইমা হায়দারকে মনোনয়ন প্রদান করেছেন।’ বিচারপতি নাইমা হায়দার সুপ্রিম কোর্ট লিগ্যাল এইডের চতুর্থ চেয়ারম্যান।

আইনগত সহায়তা : দেশের সব নাগরিক আইনের দৃষ্টিতে সমান। বাংলাদেশের সংবিধানের ২৭নম্বর অনুচ্ছেদে তাই বলা আছে। সুতরাং আইনি সহায়তা পাওয়ার অধিকার হচ্ছে নাগরিকের সাংবিধানিক অধিকার। সাধারণভাবে আইনগত সহায়তা অর্থ হচ্ছে, আর্থিকভাবে অসচ্ছল বা আর্থ-সামাজিক নানা কারণে বিচারপ্রাপ্তিতে অসমর্থ ব্যক্তির আইনি অধিকার রক্ষা এবং তা নিশ্চিত করতে বিভিন্ন প্রক্রিয়ায় সহায়তা দেওয়া।

বেসরকারি কয়েকটি উন্নয়ন সংস্থা বা সংগঠন ছাড়া ২০০০ সালের আগে এমন ব্যক্তি বা জনগোষ্ঠীকে সরকারিভাবে আইনগত সহায়তা দেওয়ার বাধ্যবাধকতা ছিল না। ওই বছর সরকার ‘আইনগত সহায়তা প্রদান আইন ২০০০’ নামে আইন করে। এ আইন হওয়ার পরই সরকারিভাবে অসচ্ছল বা আর্থ-সামাজিক নানা কারণে বিচার পাওয়ার ক্ষেত্রে অসমর্থ ব্যক্তিকে আইনগত সহায়তা দেওয়ার কাজ শুরু হয়।

আইন পাশের তিন বছর পর সুপ্রিম কোর্টে বিনামূল্যে আইনি সহায়তা দিতে সরকার ২০১৩ সালে আইনটি সংশোধন করে। পরের বছর ২০১৪ সালের ৮ সেপ্টেম্বর সুপ্রিম কোর্ট লিগ্যাল এইড কমিটির অফিস উদ্বোধন করেন তখনকার প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা। এর পরই গঠন করা হয় সুপ্রিম কোর্ট লিগ্যাল এইড কমিটি।২০১৪ সালের ২৯ ডিসেম্বর কমিটির চেয়ারম্যান করা হয় হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি মো. নিজামুল হককে। পরের বছর ২০১৫ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি বিচারপতি নিজামুল হক আপিল বিভাগের বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ পেলে ১৮ ফেব্রুয়ারি সুপ্রিম কোর্ট লিগ্যাল এইডের চেয়ারম্যান করা হয় হাইকোর্টের বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিমকে। তিনি সাত বছর দায়িত্ব পালন করেছেন। গত বছর ৮ ফেব্রুয়ারি তিনি আপিল বিভাগে নিয়োগ পেলে ১০ জানুয়ারি বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেনকে চেয়াম্যান করা হয়। তাঁর দায়িত্ব চালিয়ে যাওয়ার মধ্যেই গত ১১ ডিসেম্বর তিনি আপিল বিভাগে নিয়োগ পান। পরে গত ৫ জানুয়ারি বিচারপতি নাইমা হায়দারকে চেয়ারম্যান নিয়োগ দেন প্রধান বিচারপতি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x