১৯৯৯ সালে প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ অংশ নিয়ে ক্রিকেট বিশ্বকে চমকে দেয় বাংলাদেশ। বিশ্ব মঞ্চে নিজেদের অভিষেক আসরে পাকিস্তানকে হারিয়ে দিয়েছিল টাইগাররা।

এরপর পেরিয়ে গেছে দুই দশকের বেশি সময়। বাংলাদেশ এখন বিশ্বকাপের নিয়মিত মুখ। ছেলেদের সেই কীর্তির প্রায় ২৩ বছর প্রথমবারের মতো ওয়ানডে বিশ্বকাপ খেলতে নামছে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল।

শনিবার (৫ মার্চ) ভোর চারটায় নিউজিল্যান্ডের ডানেডিনে চলমান মেয়েদের ওয়ানডে বিশ্বকাপের দ্বিতীয় ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার মুখোমুখি হবে টাইগ্রেসরা। দুই দলের গত পাঁচ ম্যাচের পাঁচটিতে জিতেছে প্রোটিয়া নারীরা। তবে ‍পুরোনো পরিসংখ্যান ভুলে অভিষেক জয়ে আসর রাঙাতে চায় বাংলাদেশ।

ম্যাচের আগের দিন সংবাদ সম্মেলনে এমন প্রত্যাশায় ব্যক্ত করেন বাংলাদেশের অধিনায়ক নিগার সুলতানা জ্যোতি, ‘আমাদের জন্য এবং সবার জন্যই প্রথম ম্যাচ খুবই গুরুত্বপূর্ণ। টুর্নামেন্টে আমরা কীভাবে এগোব, তা অনেকটা বোঝা যাবে।’

প্রোটিয়া মেয়েদের সঙ্গে এই পর্যন্ত ১৭ ম্যাচ খেলে ২টিতে জয় পেয়েছে টাইগ্রেসরা। ওয়ানডে মর্যাদা পাওয়ার গত ১১ বছরে বাংলাদেশ ম্যাচ খেলেছে মাত্র ৪২টি। এত কম ম্যাচ খেললেও বিশ্বকাপে ভালো কিছু করার ব্যাপারে আশাবাদী নিগার, ‘আমরা জয়ের জন্যই মাঠে নামব। আমাদের জন্য এটা সুযোগ, কারণ দক্ষিণ আফ্রিকাকে আমরা ভালোভাবে জানি। জয় দিয়ে শুরু করার ভালো একটি সম্ভাবনা তাই আমাদের আছে।’

প্রথম ওয়ানডে বিশ্বকাপ হলেও বাংলাদেশের মেয়েরা ইতোমধ্যে চারটি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে অংশ নিয়ে ফেলেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x