আজ শুক্রবার,১৭ জুন,২০২২ খ্রি. তারিখে মুজিব শতবর্ষ এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান’র ১০২তম জন্মদিন উপলক্ষ্যে জানিপপ কর্তৃক আয়োজিত বর্ষকালব্যপী জুম ওয়েবিনারে এক বিশেষ সেমিনারের ৩১৭তম পর্ব অনুষ্ঠিত হয়। জানিপপ-এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান প্রফেসর ড.মেজর নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ, বিএনসিসিও’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে সংযুক্ত ছিলেন ইউএন ডিজএ্যাবিলিটি রাইটস্ চ্যাম্পিয়ন ও অনারারি প্রফেসর আবদুস সাত্তার দুলাল এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে সংযুক্ত ছিলেন শিক্ষা ক্যাডারের সহযোগী অধ্যাপক ও গবেষক আবু সালেক খান, নীলফামারীর জলঢাকা থেকে পিএইচডি গবেষক ফাতেমা-তুজ-জোহরা, টাঙ্গাইল থেকে বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সোনিয়া সিকদার ও রংপুর থেকে আফসানা করিম।

সেমিনারে গেস্ট অব অনার হিসেবে সংযুক্ত ছিলেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক জেবউননেসা ও সিনিয়র সাংবাদিক ও পিএইচডি গবেষক সাজেদা হক এবং মুখ্য আলোচক হিসেবে সংযুক্ত ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়,গোপালগঞ্জ এর বঙ্গবন্ধু ইনস্টিটিউট অব লিবারেশন ওয়ার এন্ড বাংলাদেশ স্টাডিজ এর অধীনে পিএইচডি গবেষণারত প্রশান্ত কুমার সরকার।

সভাপতির বক্তৃতায় ড.কলিমউল্লাহ বলেন, বাঙালি জাতি-রাষ্ট্রের স্রষ্টা, ইতিহাসের মহানায়ক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাঙালির হৃদয়ের গহীনে অবস্থান করেন। তিনি বেঁচে আছেন আমাদের অনুভবে।
আব্দুস সাত্তার দুলাল, বাঙালি জাতি রাষ্ট্র গঠনের স্বপ্নদ্রষ্টা এবং সফল নেতা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অতুলনীয় ভূমিকা তুলে ধরেন।

অধ্যাপক জেবউননেসা বলেন, বর্ষার বৃষ্টি উপভোগ করার সুযোগ নেই এখন।বৃষ্টিস্নাত হয়ে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে বন্যা পীড়িত অঞ্চলে।তবেই বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক হয়ে উঠা যাবে। কারণ বঙ্গবন্ধু মানুষকে ভালবাসতেন। সবার উপরে মানুষ সত্য। বঙ্গবন্ধু তা মনে প্রাণে বিশ্বাস করতেন। অধ্যাপক জেবউননেসা,সকল অপশক্তির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর জন্য নতুন প্রজন্মের প্রতি আহ্বান জানান।
গবেষক আবু সালেক খান বলেন,
রাজনীতি যে হানাহানি, মারামারি, খুনাখুনি বা পরস্পরের প্রতি কটুবাক্য ছোঁড়াছুড়ি নয় – রাজনীতির যে একটা সৌন্দর্য আছে তা বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক বক্তব্য শুনলেই অনুভব করা যায়।
আমি আশা করছি বর্তমানে যাঁরা রাজনীতি করেন, তাঁরা বঙ্গবন্ধুকে এই বিষয়ে অনুসরণ করবেন।
নতুন প্রজন্মের কাছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ব্যক্তিত্ব, নেতৃত্ব এবং বৈশিষ্ঠ্য সঠিকভাবে তুলে ধরা এখন সময়ের দাবি বলে মনে করেন সাংবাদিক সাজেদা হক। তিনি বলেন, তা না করতে পারলে নতুন প্রজন্মের কাছে আমাদের দায় থেকে যাবে।

প্রশান্ত কুমার সরকার বলেন, বঙ্গবন্ধুর তুলনা শুধু বঙ্গবন্ধুর সঙ্গেই করা যায়।
ফাতেমা-তুজ-জোহরা বলেন, জাতির পিতার সুযোগ্য কন্যার অক্লান্ত পরিশ্রমের ফসল পাচার করছে দেশদ্রোহীরা। সুইস ব্যাংকে বাংলাদেশের সম্পদ জমাকরা সহ অন্যান্য রাষ্ট্রে যারা বেগমপাড়া গড়ে তুলছে এদের বিরুদ্ধে জেগে উঠার আহ্বান জানান তিনি।

সভায় বক্তারা বলেন, বাংলাদেশের উন্নয়নের অগ্রযাত্রা ব্যাহত করার জন্য ষড়যন্ত্রকারীরা আবারো সক্রিয় হয়ে উঠেছে। সামনে জাতীয় নির্বাচন সেই পরিবেশ বিনষ্ট করার লক্ষ্যে অপতৎপরতা চালাচ্ছে। এই অপতৎপরতার বিরুদ্ধে প্রতিটি নাগরিককে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।
সেমিনারটি সঞ্চালনা করেন রয়েল ইউনিভার্সিটি অব ঢাকা’র সহযোগী অধ্যাপক,বিভাগীয় প্রধান ও ডেইলি প্রেসওয়াচ সম্পাদক দিপু সিদ্দিকী।
সেমিনারে অন্যান্যদের মধ্যে সংযুক্ত ছিলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আবুল হাসনাত ইরফান ও রাজশাহী থেকে ডা.মনোয়ার।
You sent

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x