মালয়েশিয়ায় গত এক বছরে এক লাখ পঞ্চাশ হাজার বাংলাদেশী রিক্যালিব্রেশনের আওতায় বৈধ হয়েছে বলে জানিয়েছেন কুয়ালালামপুরে নিযুক্ত বাংলাদেশ দূতাবাসের রাষ্ট্রদূত গোলাম সারোয়ার। এছাড়া গত এক বছরে তিন লাখ পাসপোর্ট প্রবাসী বাংলাদেশীদের হাতে তুলে দেয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।

মালয়েশিয়ায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জ্যেষ্ঠ ছেলে বীরমুক্তিযোদ্ধা শহীদ ক্যাপ্টেন শেখ কামালের ৭৩তম জন্মদিন উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় হাইকমিশনার এসব কথা বলেন। ৫ আগস্ট শুক্রবার মালয়েশিয়া সময় বিকেল সাড়ে ৪ টায় বাংলাদেশ দূতাবাসে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

রাষ্ট্রদূত মো: গোলাম সারোয়ারের সভাপতিত্বে ও ফার্স্ট সেক্রেটারি রেহানা পারভীনের অনুষ্ঠান পরিচালনায় সভার শুরুতে বঙ্গবন্ধু পরিবারের সদস্যদের এবং শহীদদের রুহের মাগফিরাত কামনা করে মোনাজাত ও দোয়া পাঠ করা হয়। দোয়া পাঠ শেষে রাষ্ট্রপতির বাণী পাঠ করেন, কাউন্সিলর মো. রাজিবুল আহসান।

বাণী পাঠ শেষে অনুষ্ঠানে শেখ কামালের জীবনের ওপর ভিত্তি করে নির্মিত ‘শেখ কামাল এক কিংবদন্তির কথা’ শীর্ষক প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়। আলোচনা সভায় রাষ্ট্রদূত মো. গোলাম সারোয়ার বক্তব্যের সূচনায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু, বীরমুক্তিযোদ্ধা শহীদ ক্যাপ্টেন শেখ কামাল এবং বঙ্গবন্ধুর পরিবারের সব শহীদ সদস্যের প্রতি শ্রদ্ধা জানান।

সভায় রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘দেশের সমাজভাবনায় শেখ কামাল মাত্র ২৬ বছরের জীবনে বাঙালির সংস্কৃতি ও ক্রীড়াক্ষেত্রে এক বিরল প্রতিভাবান সংগঠক ও উদ্যোক্তা ছিলেন। ক্রীড়া ও সংস্কৃতিতে আধুনিক বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন নিয়ে তিনি কাজ করে গেছেন। তিনি দেশের তরুণ প্রজন্মের জন্য আজীবন অনুকরণীয় বলে উল্লেখ করেন হাইকমিশনার।’

দেশের ক্রীড়াঙ্গন, সাংস্কৃতিক অঙ্গন এবং মহান মুক্তিযুদ্ধে শেখ কামালের অবদানকে স্মরণ করেন রাষ্ট্রদূত। আলোচনা সভায় বিশ্বময় চলমান সঙ্কট উত্তরণে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশিত পথে এগিয়ে যাওয়ার আহ্বান জানান। রাষ্ট্রদূত মো. গোলাম সারোয়ার বৈধ পথে বাংলাদেশে রেমিটেন্স পাঠানোর জন্য প্রবাসীদের প্রতি আহ্বান জানান।

Tweet

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x