25 November, 2020
শিরোনাম

‘জালিয়াতির প্রমাণ’ দিলেন ট্রাম্পের আইনজীবী

 10 Nov, 2020   61 বার দেখা হয়েছে

 নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রিন্ট

যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন হোয়াইট হাউসে প্রবেশের প্রথম ধাপের কাজ শুরু করে দিয়েছেন। যদিও প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প নির্বাচনে পরাজয় মেনে নিতে এখনও অস্বীকৃতি জানিয়ে আসছেন।

এমনকি নির্বাচনী ফল নিয়ে সন্দেহ তৈরি করারও চেষ্টা চালাচ্ছেন তিনি। ভোট গণনা শুরুর খানিক পর থেকেই নানা অভিযোগ তুলেছেন রিপাবলিকান প্রার্থী ও বর্তমান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। যদিও এর পক্ষে কোনো প্রমাণ দিতে পারেননি তিনি।

মার্কিন গণমাধ্যমগুলোর তথ্যমতে, ডেমোক্র্যাট দলীয় প্রার্থী জো বাইডেন জয়লাভ করেছেন। ইতোমধ্যে বিশ্বের অনেক নেতা, এমনকি খোদ সাবেক রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট জর্জ বুশ এবং দলটির প্রভাবশালী নেতা মিট রমনি বাইডেনকে সমর্থন জানিয়েছেন। বিষয়টি নিয়ে ট্রাম্পের পরিবারের মধ্যেও বিভক্তি দেখা দিয়েছে। জামাতা কুশনার ও স্ত্রী মেলানিয়া পরাজয় মেনে নিতে বললেও ট্রাম্পের দুই ছেলে আইনি লড়াই অব্যাহত রাখার পক্ষে।

ট্রাম্পও তার দাবির পক্ষে অনড় রয়েছেন। তার পক্ষে মুখ খুলেছেন হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র কেইলি ম্যাকেনানি এবং দলীয় প্রচার শিবির। সেই সারিতে এবার নাম লেখালেন ট্রাম্পের আইনজীবী রুডি গিলিয়ানি।

রুশ গণমাধ্যম আরটি জানিয়েছে, রুডি গিলিয়ানি দাবি করেছেন, মানুষ কবর থেকে উঠে এসে ডেমোক্র্যাটদের পক্ষে ভোট দিয়েছে। কারণ চার বছর আগে যিনি মারা গেছেন, তিনিও নির্বাচনে ভোট দিয়েছেন।

প্রমাণ হিসেবে গিলিয়ানি ফিলাডেলফিয়া শহরের কথা বলেন। অভিযোগ করেন, সেখানে নির্বাচনী ব্যবস্থায় ডেমোক্র্যাটদের নিয়ন্ত্রণ ছিল। এ ব্যাপারে তথ্য বের করার কথাও বলেন তিনি।

ট্রাম্পের আইনজীবী দাবি করেন, ফিলাডেলফিয়া শহরের আগের নির্বাচনগুলোতে ভোট দিয়েছেন প্রয়াত হেভিওয়েট বক্সার জো ফ্রেজিয়ার এবং অভিনেতা উইল স্মিতের মৃত দাদা।

তিনি বলেন, ২০১৮ সালে মারা যান জো ফ্রেজিয়ার। অথচ তার কয়েক মাস পর অনুষ্ঠিত শহরটির নির্বাচনে ভোট দিয়েছেন তিনি। এ ছাড়া ২০১৬ সালে মারা স্মিথের দাদা। অথচ তিনিও পরের দুই বছরে নির্বাচনে ভোট দিয়েছেন।

অন্যদিকে, পেনসিলভানিয়া অঙ্গরাজ্যে ভোট জালিয়াতি হয়েছে এবং বিষয়টি নিয়ে প্রাথমিকভাবে কাজ করছেন বলেও জানান গিলিয়ানি। সেখানে বাইডেন জালিয়াতির মাধ্যমে জিতেছেন বলে অভিযোগ তার।

ট্রাম্পের এ আইনজীবী এক টুইটবার্তায় দাবি করেন, নির্বাচনের দিন রাতেও ট্রাম্প ওই রাজ্যে ৮ লাখ ভোটে এগিয়ে ছিলেন। এর পর সেখানে লাখ লাখ পোস্টাল ব্যালট গণনা করা হয়েছে, কিন্তু কোনো রিপাবলিকান পর্যবেক্ষক ছিলেন না।

এই পেনসিলভানিয়ায় জেতার পরই বাইডেনের জয় নিশ্চিত হয়। এ প্রসঙ্গে গিলিয়ানি বলছেন, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প শুরু থেকেই এগিয়ে ছিলেন। বিপুল আগাম ভোটের কারণে ভোট গণনায় দীর্ঘ সময় লেগে যাওয়ায় বেশি উত্তেজনা তৈরি হয়। আর এই ফাঁকে ট্রাম্পকে হারিয়ে নিজের জয় নিশ্চিত করেন বাইডেন।

পেনসিলভানিয়াতেও মৃত মানুষদের ভোট গণনা করা হয়েছে অভিযোগ করে গিলিয়ানি ভোট গণনার ওপর নিরীক্ষা চালানোর দাবি জানান। সেইসঙ্গে অভিযোগ নিয়ে আদালতে যাওয়ার কথাও বলেন।

সম্পর্কিত খবর
সব খবর
© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | বাংলা৫২নিউজ.কম
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি এবং অপরাধ