02 December, 2020
শিরোনাম

কঠোর আন্দোলনের হুমকি প্রাথমিকে প্যানেলে নিয়োগপ্রত্যাশীদের

 15 Oct, 2020   542 বার দেখা হয়েছে

 নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রিন্ট

দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত অবস্থান থেকে সরবে না বলে জানিয়েছেন প্রাথমিকের প্যানেলে নিয়োগ প্রত্যাশীরা। টানা তৃতীয় দিনের মতো প্রাথমিক অধিদপ্তরের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে প্রাথমিকে প্যানেল প্রত্যাশীরা। বৃহস্পতিবার (১৫ অক্টোবর) মাথায় কাফনের কাপড় পরে অধিদপ্তরের মূল ফটক অবরোধ করেন তারা। তাদের দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত এ অবস্থান থেকে সরবে না বলে জানিয়েছেন নিয়োগ প্রত্যাশীরা। এমতাবস্থায় তাদের দাবি মেনে না নিলে কঠোর আন্দোলনের হুমকি দিয়েছেন তারা।

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষক পদে প্যানেলে নিয়োগের দাবিতে কাফনের কাপড় পরে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের (ডিপিই) সামনে অবস্থান কর্মসূচি পুলিশ ছত্রভঙ্গ করে দিলেও প্রেস ক্লাবের সামনে অবস্থান নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন নিয়োগপ্রার্থীরা।

বুধবার (১৪ অক্টোবর) দিবাগত রাতে পুলিশ তাদের লাঠিপেটা করে ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এতে তিনজন নারীসহ ১০ জন আন্দোলনকারী আহত হন।

এ আন্দোলনের প্রচার সম্পাদক ইলিয়াস ভুঁইয়া বলেন , ‘আমরা প্রথমে প্রেসক্লাবে অবস্থান করেছি। সরকার আমলে নেয়নি। এখন এখানে অবস্থান নিয়েছি। আমাদের আর ফিরে যাওয়ার সুযোগ নেই।’

তাদের দাবি, ২০১৪ সালের পরে আমরা এ প্রথম একটি নিয়োগ পেয়েছি। আমাদের অনেকের চাকরির বয়স শেষ হয়েছে। এ পরিস্থিতিতে নতুন আবেদনের সুযোগ নেই। তাছাড়া আমরা সবাই লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষায় পাস করেছি। সুতরাং আমাদের বাদ দিয়ে নতুন বিজ্ঞপ্তি অমানবিক।

সংগঠনের সভাপতি আব্দুল কাদের বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরে সরকারের কাছে অনেক আবেদন নিবেদন করেও ফল না পাওয়ায় বাধ্য হয়ে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের সামনে অবস্থান নিতে বাধ্য হয়েছি। লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে নিজেদের যোগ্যতা প্রমাণ করেছি। এরপরও শূন্য পদে তাদের নিয়োগ না দিয়ে কর্তৃপক্ষ অমানবিক আচরণ করেছে। তিনি এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করেন।’

প্রসঙ্গত, গত শনিবার থেকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান শুরু করেন প্রাথমিকের প্যানেল প্রত্যাশীরা। এরপর মঙ্গলবার (১৩ অক্টোবর) দুপুরে মিরপুরে ডিপিই কার্যালয়ের সামনে এ অবস্থান কর্মসূচি শুরু করেন তারা।

সম্পর্কিত খবর
সব খবর
© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | বাংলা৫২নিউজ.কম
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি এবং অপরাধ