17 June, 2021
শিরোনাম

শুভর তৈরি মেডিকেল এসিস্ট্যান্ট রোবট "সেবক" প্রাক্টিক্যাল ট্রায়াল সফলভাবে সম্পন্ন

 07 Jun, 2021   98 বার দেখা হয়েছে

 নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রিন্ট

মনজুর লিটন আগৈলঝাড়া প্রতিনিধিঃ বরিশাল জেলার আগৈলঝাড়া উপজেলার ক্ষুদে বিজ্ঞানী শুভ কর্মকার এর দ্বিতীয় আবিষ্কারক মেডিকেল এসিস্ট্যান্ট রোবট "সেবক"এর প্রাক্টিক্যাল ট্রায়ালটি সফলভাবে সম্পন্ন হয়েছে।

 আজ  ০৭.০৬.২০২১ সোমবার আগৈলঝাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এই ট্রায়াল অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন স্বনামধন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জনাব আবুল হাশেম সাহেব, উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা বক্তিয়ার আল মামুন সহ বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ ও মাই টিভির প্রতিনিধি  সহ সাংবাদিক বৃন্দ।

রোবটটির বিভিন্ন কার্যক্রম বাস্তবায়ন কিভাবে করবে তা দেখানো হয।

এটি করোনাকালীন বিশেষ ভূমিকা পালন করবে। কোন রোগীর জরুরী অক্সিজেন প্রয়োজন হলে ১৫-২০ মিনিট অক্সিজেন তৈরি করে দিতে পারবে। ইউ ভি লাইটের মাধ্যমে শরীরের করোণার জীবানু ধ্বংস করে দিবে। এটি ইন্টারনেটের মাধ্যমে যেকোনো স্থান থেকে কন্ট্রোল করা যাবে। রোগীর প্রয়োজনে  রোগীর সেবা যত্ন অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে। রোগীর বিশেষ কোন কিছু প্রয়োজন হলে ইন্টারনেটের মাধ্যমে কন্ট্রোল করে একজন সেবক বা সেবিকার ভূমিকা পালন করতে পারবে।

 

রোবট সেবক এর আবিষ্কারক ক্ষুদে বিজ্ঞানী শুভ কর্মকার জানান, চিকিৎসাসেবায় কাজ করবে বলে এর নাম রাখা হয়েছে "সেবক "।চিকিৎসাক্ষেত্রে সরাসরি সহযোগিতার জন্যই আমার এই প্রচেষ্টা। আমার এর আগে বানানো রোবট ‘রবিন’ ছিল মানবাকৃতির। কোথাও আগুন লাগলে বা গ্যাস লিকেজ হলে সংকেত পাঠাতে পারতো। এখন বাংলাদেশসহ সারাবিশ্ব একটি সংক্রমণের সঙ্গে লড়াই করছে। এ ক্ষেত্রে আমি কীভাবে সাহায্য করতে পারি- এমন প্রশ্ন থেকেই দ্বিতীয় রোবট ‘সেবক’প্রকল্পে হাত দেই। তিন মাসের প্রচেষ্টায় একটি মডেল বাস্তবায়ন করেছি।

 তিনি আরো জানান ডাক্তার যত দূরেই থাকুক নির্দেশনা মেনে রোগীর সুচিকিৎসা নিশ্চিত করবে রোবটটি। রোগীর অক্সিজেন সেচুরেশন কমে গেলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে উৎপাদন করে ১৫ থেকে ২০ মিনিট অক্সিজেন সরবরাহ করতে পারবে। 

 

একই সঙ্গে ওষুধ আনা-নেওয়া, অক্সিজেন মাস্ক দেওয়া, রোগীর প্রাথমিক চিকিৎসার ওষুধ সরবরাহ করা, সংক্রমিত রোগীর বর্জ্য তার শরীরে থাকা ইউভি রশ্মির মাধ্যমে জীবানুমুক্ত করতে পারবে।

 

এটি সেবক রোবটটির একটি ডেমো ভারসন,, এমনভাবে একটি রোবট তৈরি করা হলে সে প্রকৃতপক্ষেই ডাক্তার এবং রোগীর মধ্যে যোগাযোগের একটি মাধ্যম হয়ে কাজ করতে পারবে। ‘সেবক’ সরাসরি রোগীর কাছে যেতে পারবে। তার কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা কাজে লাগিয়ে সঙ্গহীন রোগীকে সঙ্গ দিতে পারবে। ইন্টারনেট প্রযুক্তি ব্যবহার করে ডাক্তার বিশ্বের যে প্রান্তেই থাকুক রোগীর সর্বশেষ অবস্থা সরাসরি দেখতে পারবেন, রোগীর সঙ্গে কথা বলতে পারবেন এবং প্রেসক্রিপশন দিতে পারবেন। 

 

উপজেলা নির্বাহি অফিসার জনাব আবুল হাশেম সাহেব  বলেন রোবটটি খুবই কার্যকরী,,আমি শুভোর সাফল্য কামনা করছি। এছাড়া আইসিটি বিভাগে যোগাযোগ সহ সকল সাহায্য ও পৃষ্ঠপোষকতার আশ্বাস দেন।

 

ডাক্তার বখতিয়ার আল মামুন বলেন এমন একটি রোবট আমাদের চিকিৎসা ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে! এটি সত্যি খুবই ব্যাবহার্য এবং ডাক্তার ও রোগী উভয়েই উপকৃত হবেন

 

বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলার গৈলা ইউনিয়নের কালুপাড়া গ্রামের বাসিন্দা সন্তোষ কর্মকার এর ছেলে শুভ কর্মকার। দুই ভাইবোনের মধ্যে বড় শুভ গৈলা সরকারি মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক শেষ করে ভর্তি হয়েছেন বরিশাল শহরের অমৃত লাল দে মহাবিদ্যালয়ে।

সম্পর্কিত খবর
সব খবর
© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | বাংলা৫২নিউজ.কম
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি এবং অপরাধ